দিনাজপুর-১ আসনে পুলিশের উপস্থিতিতেই বিএনপির নির্বাচনী অফিস ভাংচুর

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনাজপুর ৬টি আসনে সবচেয়ে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনে। এই আসনে বিভিন্ন দলের ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এই আসনে মোট ভোটার সংখ্যা প্রায় ৩ লাখ ৪৪ হাজার ৪৩ জন। পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৭২ হাজার ৫৫৫৪ জন। নারী ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৭১ হাজার ৪৯৯ জন।

দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) বিএনপি’র মনোনীত ধানের শীষ প্রার্থী মাওলানা মোহাম্মদ হানিফের বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের দুলুয়া বাজারের পুলিশের উপস্থিতিতেই নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করেছে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা। সোমবার দিবাগত রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এসব ঘটনায় একাধিক প্রত্যক্ষদর্শীর দাবী, সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টার দিকে অফিস উদ্বোধন করে তিনি চলে আসেন, তার কিছুক্ষনের মধ্যেই তিনি আনুমানিক সাড়ে ৭টার দিকে নৌকা সমর্থক ৪০/৫০জন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের দুলুয়া বাজারের ২জন পুলিশের উপস্থিতিতেই নির্বাচনী অফিস অফিসে হামলা ও ভাংচুর চালায়। এ সময় বিএনপি’র জুনায়েতসহ ২জন সমর্থককে গ্রেফতার করে নিয়ে যান পুলিশ।

মাওলানা মোহাম্মদ হানিফ বলেন- আজকের অফিস ভাংচুর চাড়াও গত দুদিন আগেহ কাহারোলে আমাদের প্রচারনার মাইক ভাংচুরও করেছেন তারা, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আমার জনপ্রিয়তা ও জনসমর্থন দেখে ঈর্ষান্বিত হয়ে উদ্দেশ্যে প্রনোদিত হয়ে এ কাজগুলো করছেন তারা। হিংসার রাজনীতিতে বিজয়ের দাড়িপাল্লার ওজন কখনো ভারি হয় না। বার বার এধরনের ভাংচুরের ঘটনাই প্রমান করে আমার বিজয় নিশ্চিত। বীরগঞ্জ-কাহারোলবাসী এর জবাব ৩০ ডিসেম্বর ভোটের মাধ্যমে দিতে চায়।

এ ব্যাপারে দিনাজপুর বীরগঞ্জ থানার ওসি সাকিলা পারভীনের , ‘ঘটনাটি আমি শুনেছি।’

Comments

comments