চৌদ্দগ্রামে যুব-ছাত্রলীগের মোটরসাইকেল ও হেলমেট বাহিনীর দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি

  • ধানের শীষের পোস্টার-ব্যানার ছিড়ে ও পুড়ে ফেলার অভিযোগ
  • সাবেক এমপি ডাঃ তাহেরের নিন্দা

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বিভিন্নস্থানে পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় যুব-ছাত্রলীগের মোটর সাইকেল ও হেলমেট বাহিনীর দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পেয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ধানের শীষ প্রতীকের ব্যানার-পোস্টার ছিড়ে ও পুড়ে ফেলার অভিযোগ করেছেন সাবেক এমপি ও বিশ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় নেতা ডাঃ সৈয়দ আবদুল্লাহ মোঃ তাহের।

গতকাল রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, শনিবার রাতে উপজেলার জয়মঙ্গলপুর, রামচন্দ্রপুর, শিবের বাজার, নোয়াবাজার, নারায়ণপুর, ফকিরহাট, ফুলমুড়ি, ডাকরা, পেছাইমুড়ি, সিংরাইশ, খিরণশাল বাজার, চান্দিশকরা, ফালগুনকরা, চন্ডিপুর, একতা বাজার, বৈলপুর, দেড়কোটা, চিওড়া, আলকরা, পদুয়াসহ বিভিন্ন জায়গায় যুবলীগ-ছাত্রলীগের মোটর সাইকেল ও হেলমেট বাহিনী ধানের শীষ প্রতীকের পোস্টার-ব্যানার ছিড়ে ও পুড়ে ফেলেছে।

ইউপি চেয়ারম্যানদের নেতৃত্বে ও পুলিশ প্রশাসনের সহায়তা তারা ধানের শীষ প্রতীকের নির্বাচনী নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি-ধমকি অব্যাহত রেখেছে। এছাড়া চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ছাত্রশিবির সেক্রেটারী মহিউদ্দিন রনি, ধানের শীষের কর্মী বাচ্চু মিয়াকে শ্রীপুর ইউপি ও সবুজকে আটক শেষে মুন্সিরহাট ইউপি কার্যালয়ে নিয়ে পরিবারের লোকজনকে খবর দেয়। নির্বাচনের দিন না থাকার স্বীকারোক্তিযুক্ত মুছলেখা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

ডাঃ তাহের আরও অভিযোগ করেন, তফসিল ঘোষণার আগে থেকেই আ’লীগের প্রার্থীর পক্ষে নেতাকর্মীরা প্রচারণা চলমান রেখেছে। চৌদ্দগ্রামের ৭০ ভাগ ভোটার ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করতে চাইলে পুলিশ তা হতে দেয়নি। স্বাধীন দেশে পুলিশ প্রশাসন আ’লীগের দলীয় নেতাকর্মীর মত আচরণ করছে। নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেই আ’লীগের প্রচার কাজ চললেও প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করছে। অবিলম্বে পুলিশকে নিরপেক্ষ ভুমিকা পালনের আহবান জানান তিনি।

Comments

comments