ঢাকা-১৫ আসনে বাধা উপেক্ষা করে চলছে ধানের শীষের গণসংযোগ

রাজধানীর সবচেয়ে আলোচিত নির্বাচনী ঢাকা-১৫ (মিরপুর কাফরুল) আসনে প্রচারণায় ব্যস্ত থাকছেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীর নেতা-কর্মীরা। মিরপুর কাফরুল এলাকার বিভিন্ন মহল্লায় দলবদ্ধভাবে ডা. শফিকুর রহমানের পক্ষে ভোট চেয়ে লিফলেট বিতরণ করছে কর্মীরা। এতে এলাকার মানুষও অনেকটা উৎসবমুখর নির্বাচনী আবহাওয়া দেখতে পাচ্ছে। স্বপ্ন দেখছে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনের।

আজ রবিবার সকালে মিরপুর-কাফরুল এলাকায় এই প্রচারণা চালায় ধানের শীষ প্রতীকের কর্মীরা। এসময় নেতা-কর্মীরা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে অনেকটা দৃড় প্রত্যয়ীই মনে হচ্ছে।

প্রচারণায় বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে প্রচারণায় অংশ নেয়া এক নেতা বলেন, আমাদেরকে নানাভাবে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কামাল আহমেদ মজুমদার ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরা হুমকি-ধামকি দিলেও নির্বাচনী প্রচারণা ও মাঠ থেকে সরে যাবো না আমরা। এর আগে পুলিশ ধানের শীষ প্রতীকের পোষ্টার ও লিফলেট সহ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে। হয়রানি করতে প্রতিনিয়ত জামায়াত-শিবিরের বাসা বাড়িতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। এমনকি বিএনপির নেতা-কর্মীদের জর্জকোট এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে। যা নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখার অপকৌশলমাত্র।

জামায়াতের আরেক নেতা বলেন, ধানের শীষের পক্ষে যে জোয়ার উঠেছে তাতে আতঙ্কিত হয়েই কামাল আহমেদ মজুমদার দলীয় সন্ত্রাসীদের দিয়ে নানারকম সন্ত্রাসী ও ভীতিমূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে যাতে ভোটারগণ ভোটকেন্দ্রে না যান। একদিকে সরকার দলীয় প্রার্থী অবাধে প্রচারণা চালালেও অন্যপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে প্রশাসন ও আওয়ামী লীগের কর্মীরা বাধার সৃষ্টি করছে যা নির্বাচনী লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের পরিবেশ ধ্বংস করছে।

উল্লেখ্য, প্রতীক বরাদ্দের পর কামাল আহমেদ মজুমদার ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ডা. শফিকুর রহমানকে জাড়িয়ে যে আপত্তিকর বক্তব্য দিয়েছিলেন তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর নির্বাচনী আচরনবিধি লংঙ্ঘন করার অভিযোগ দিয়েছেন ঢাকা বিভাগীয় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে ডা. শফিকুর রহমান। এমনি তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন একটি সূত্র।

Comments

comments