ঢাকা-১৫: প্রার্থীতা বাতিল হতে পারে কামাল মজুমদারের

নির্বাচনী আচরনবিধি লংঙ্ঘন করে ঢাকা-১৫ আসনের আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কামাল আহমেদ মজুমদারের দেয়া আপত্তিকর বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এই কারণে তার প্রার্থীতা বাতিল হতে পারে। কামাল আহমেদ মজুমদারের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘনের অভিযোগ এনেছেন জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল মো. শফিকুর রহমান। তিনি এই আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে সেগুনবাগিচায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে শফিকুর রহমানের পক্ষে লিখিত অভিযোগ নিয়ে যান জামায়াতের ঢাকা মহানগর উত্তরের মজলিসে শুরা সদস্য সলিম উল্লাহ ও আইনজীবী মোশাররফ হোসাইন। অভিযোগটি গ্রহণ করেন বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার শুক্লা সরকার।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লেখা চিঠিতে শফিকুর রহমান কামাল আহমেদ মজুমদারের বিরুদ্ধে তাঁকে উদ্দেশ করে উসকানিমূলক বক্তব্য প্রদানের অভিযোগ আনেন। চিঠিতে তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের দিন দেওয়া এই বক্তব্য নির্বাচন আচরণ বিধিমালার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরি এবং সংসদীয় এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রিটার্নিং কর্মকর্তাকে অনুরোধ জানান জামায়াতের সেক্রেটারি।

অভিযোগ প্রসঙ্গে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা কে এম আজম আলী বলেন, আমরা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এ প্রসঙ্গে ডা. শফিকুর রহমানের আইনজীবী মোশাররফ হোসাইন বলেন এক্ষেত্রে কামাল মজুমদারের প্রার্থীতা বাতিল হতে পারে।

জামায়াতের নেতা-কর্মীরা বলছেন, পুলিশি বাধায় তারা নির্বাচনী কাজ করতে পারছেন না। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে এই সংসদীয় এলাকা থেকে এখন পর্যন্ত দলের শতাধিক নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে। সম্প্রতি ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে গণসংযোগ করার সময় ২ নারী কর্মীসহ ৬ জনকে আটক করা হয়। ১০ ডিসেম্বর কোনো মামলা ছাড়াই গ্রেপ্তার করা হয় ১২, ১৩ ও ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের নির্বাচিত কাউন্সিলর মাসুদা আক্তারকে। এ ছাড়া কর্মীদের বাড়ি বাড়ি চলছে পুলিশি তল্লাশি।

Comments

comments