নির্বাচনী চা বিস্কুটের বিল পরিশোধ নিয়ে দুই আওয়ামী লীগ নেতার মারামারি

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী সভায় চা বিস্কুটের বিল পরিশোধকে কেন্দ্র করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই নেতার মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

আজ বুধবার বিকেলে উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের ভাবখণ্ড বাজারে আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ের সামনে এই মারামারির ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের ভাবখণ্ড বাজারে দলীয় কার্যালয়ে এক সভার আয়োজন করা হয়। সভায় পাশের এক দোকান থেকে চা ও বিস্কুট নিয়ে নেতা কর্মীদের আপ্যায়ন করা হয়। সভা শেষে ওই দোকানে বিল পরিশোধকে কেন্দ্র করে বানাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান উজ্জলের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায় আলী আজম খান ও তার ছেলে অনিক খান উজ্জলকে মারধর করে। পরে উজ্জলও তাদের মারতে যায়। এ সময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাদের শান্ত করে।

বানাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান উজ্জল বলেন, চা বিস্কুটের টাকা পরিশোধ করতে দোকানে গেলে আলী আজম খান ও তার ছেলে আমাকে মারধর করে।

বানাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলী আজম খান বলেন, উজ্জলই তাদের ওপর চড়াও হয়ে মারতে আসে।

বানাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শামীম কবির জানান, চা বিস্কুটের বিল পরিশোধকে কেন্দ্র করে আলী আজম খান ও তার ছেলে অনিক খান জাহিদ হাসান উজ্জলকে মারধর করেছে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ নভেম্বর উপজেলার বানাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলী আজম খান ইউনিয়নের ভাবখণ্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সাঁটানো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত পোস্টার ছিঁড়ে পুকুরে ফেলে দেন। ওই পোস্টারে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও মির্জাপুর আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী খান আহমেদ শুভর ছবি থাকায় ছিঁড়ে ফেলেন। এ ছাড়া আলী আজম খান গত ইউপি নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ

Comments

comments