চৌদ্দগ্রামে ধানের শীষের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, বাড়িঘর-দোকানে হামলা, আহত ৮

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী কর্তৃক ধানের শীষের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর, হামলা-ভাংচুর ও পুলিশ কর্তৃক দুইজনকে মামলা ছাড়াই গ্রেফতারের অভিযোগ করেছেন সাবেক এমপি ও বিশ দলীয় জোটের প্রার্থী ডাঃ সৈয়দ আবদুল্লাহ মোঃ তাহের।

গতকাল বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, শুভপুর ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান ও ছাত্রলীগ নেতা সোহাগের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা মঙ্গলবার রাতে পোটকরা গ্রামে ধানের শীষের নির্বাচনী অফিস, যুবদল নেতা আহসান হাবিব জিয়ার বাড়িঘর, দোকানপাট ও একটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। হামলায় দেলোয়ার হোসেনসহ দুইজন আহত হন।

কালিকাপুর ইউনিয়নের আবদুল্লাহপুর এলাকায় ধানের শীষের পোস্টার লাগানোর সময় জোটকর্মী আমির হোসেন ও সালমানকে সাবেক চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিনের নেতৃত্বে যুবলীগ কর্মী ও পুলিশ যৌথভাবে হামলা চালিয়ে আটক করে। ধনিজকরা বাজারে ধানের শীষের গণসংযোগ শেষে পুলিশ গিয়ে নেতাকর্মীদের খোঁজ করে, মুন্সিরহাট ইউনিয়নের দেড়কোটা গ্রামের ধানের শীষের কর্মী রাকিব উদ্দিনকে যুবলীগ কর্মী নাজমুলের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা মারধর করে। চিওড়া ইউনিয়নের চিওড়া গ্রামে নাজমুল হক বাবরের বাড়িতে গিয়ে তার বৃদ্ধ বাবাকে নাজেহাল করে, একই কায়দায় হান্ডা গ্রামে মমিনুল ইসলাম ও সাঙ্গিশ্বর গ্রামে সাইফুল ইসলাম রাজুর বাড়িতে যুবলীগ কর্মীরা হামলা চালায়।

চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার নবগ্রামে ধানের শীষ প্রতীকের ব্যানার লাগানোর সময় তিন কর্মীকে আটক শেষে পৌর কার্যালয়ে নিয়ে যায় আ’লীগ নেতাকর্মীরা। পরে তাদেরকে মারধর শেষে ব্যানারগুলো পুড়ে ফেলা হয়। অপরদিকে উপজেলার বাতিসা ইউনিয়নের জামুকরা গ্রামের প্রবাসী মাহফুজকে গায়েবী মামলা দিয়ে গ্রেফতারের পর মঙ্গলবার জামিনে বের হয়। কিন্তু চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ জেলগেট থেকেই তাকে আবার গ্রেফতার করে। এছাড়া কনকাপৈত, চিওড়া, বাতিসা, পৌরসভা, মুন্সিরহাট, শুভপুর, ঘোলপাশা, কালিকাপুর ও কাশিনগর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে আ’লীগের নেতাকর্মীরা পুলিশের সহায়তায় হামলা, মামলার ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।

ডাঃ তাহের আরও অভিযোগ করেন, পুলিশ প্রশাসনের সহায়তা রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক প্রটোকল নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে। পক্ষান্তরে ধানের শীষের কর্মীদের কাজ করতে দিচ্ছে না। বিভিন্নস্থানে হামলা অব্যাহত রেখেছে। মাদক ও হত্যা মামলায় আ’লীগ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকলেও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। অবিলম্বে নির্বাচনের পরিবেশ শান্ত রাখতে পুলিশকে নিরপেক্ষ ভুমিকা পালনের আহবান জানান তিনি।

Comments

comments