জাতীয় সংসদ নির্বাচন: জামায়াত জোটে ২২, স্বতন্ত্র ২

সংবাদ ডেস্ক: আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে মনোনয়ন ও প্রতীক বরাদ্দের কাজ শেষ হয়েছে। এখন প্রার্থীদের জন্য বাকী রইল প্রচারণা ও নির্বাচনে অংশগ্রহণ।

অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ বজায় থাকলে এবারের নির্বাচন বেশ প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ হওয়ার সুযোগ আছে। যদিও নির্বাচন কমিশন, রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ ইতোমধ্যে জনমনে শঙ্কা ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। বিরোধী জোটের শীর্ষ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী ও নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা-মামলা সে সন্দেহ সংশয়কে আরও ঘনীভূত করেছে।

সবকিছুর উপর দিয়ে এটাই সত্য যে, দেশের জনগণ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চায়। আর একারণেই রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে নিবন্ধন ও প্রতীক হারালেও ২০ দলীয় জোটের অন্যতম বৃহৎ শরীক জামায়াতে ইসলামী তাদের প্রার্থী ঘোষণা করেছে। তবে এ ক্ষেত্রে দলীয় প্রতীক না থাকায় জোটের প্রধান শরীক বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চায় দলটি।

ক্ষমতাসীন মহাজোটের বিপরীতে ২০ দলীয় জোটের হয়ে যারা লড়বেন তারা হলেন- ঠাকুরগাঁও-২ জামায়াতের জেলা আমীর মাওলানা আবদুল হাকিম, দিনাজপুর-১ জেলা জামায়াত নেতা মো. হানিফ, দিনাজপুর-৬ জেলা জামায়াতের আমীর আনোয়ারুল ইসলাম, নীলফামারী-২ বীর মুক্তি যোদ্ধা ও জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর মনিরুজ্জামান মন্টু, নীলফামারী-৩ কেন্দ্রীয় মজলিশ শূরা সদস্য, সাবেক জেলা আমীর, মো. আজিজুল ইসলাম, গাইবান্ধা-১ জামায়াতের জেলা সহকারী সেক্রেটারি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাজেদুর রহমান সরকার, সিরাজগঞ্জ-৪ কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, পাবনা-৫ জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মো. ইকবাল হোসাইন, ঝিনাইদহ-৩ জামায়তের জেলা সেক্রেটারি অধ্যাপক মতিয়ার রহমান, যশোর-২ কেন্দ্রীয় মজলিশ শূরা সদস্য আবু সাঈদ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসাইন, বাগেরহাট-৩ জেলা জামায়াত নায়েবে আমীর আবদুল ওয়াদুদ, বাগেরহাট-৪ জেলা জামায়াত নেতা আবদুল আলিম, খুলনা-৫ কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি মিয়া গোলাম পরওয়ার, খুলনা-৬ খুলনা মহানগর জামায়াতের আমীর মো. আবুল কালাম আজাদ, সাতক্ষীরা-২ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সেক্রেটারি ও সাবেক জেলা আমীর মুহাদ্দিস আবদুল খালেক, সাতক্ষীরা-৪ কেন্দ্রীয় মজলিশ শূরা সদস্য জি এম নজরুল ইসলাম, পিরোজপুর-১ শামীম সাঈদী, ঢাকা-১৫ জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল জেনারেল ডা: শফিকুর রহমান, কুমিল্লা-১১ জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের, চট্টগ্রাম-১৫ কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি আ ন ম শামসুল ইসলাম, কক্সবাজার-২ কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি ও সাবেক এমপি হামিদুর রহমান আজাদ,  রংপুর-৫ জামায়াতের জেলা সাংগঠনিক সেক্রেটারি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী।

স্বতন্ত্র হিসেবে এ নির্বাচনী লড়াইয়ে থাকছেন ২ জন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে জামায়াত নেতা নুরুল ইসলাম বুলবুল। তিনি জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির। চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে জামায়াত নেতা জহিরুল ইসলাম। তিনি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন।

Comments

comments