জি মেইলের নতুন সুবিধা: যুক্ত হলো আরও পাঁচ ফিচার

জি মেইলে নতুন প্রদান করা সুবিধাগুলোর মাধ্যমে ভুলে কারো কাছে কোনো মেইল চলে গেলে ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে ভুলবশত প্রেরিত মেইলটি ফিরিয়ে আনা যাবে ড্রাফট বক্সে। মেইল ফিরিয়ে আনার জন্য জি-মেইলের সেটিংস বিভাগে থাকা ‘আনডু’ অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।

অফলাইনে ব্যবহার করা যাবে জি-মেইল। সেটিংস অপশনে গেলেই পাওয়া যাবে এই অফলাইন পরিষেবা। শুধুমাত্র মেইল পাঠানো বাদ দিয়ে অন্য সবকিছুই করা যাবে। মেইল কম্পোজ করে সেভ করে রাখা যাবে। ইন্টারনেট যোগ করার সঙ্গে সঙ্গে ওই সেভ মেইলটি নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ঠিকানায় পৌঁছে যাবে।

পুরানো মেইলের সন্ধান করা বা তা ডিলিট করা এখন আরও সুবিধাজনক হয়ে গেছে। সার্চ অপশনে গিয়ে, যে মেইলটার খোঁজ করছেন সেটা সম্পর্কিত কিছু লিখলে বা প্রেরকের নাম লিখলেই চলে আসবে নির্দিষ্ট মেইলটি।

কোনো মেইল পাঠানোর আগে সেই মেইলের সঙ্গে একটা নির্দিষ্ট টাইম সেট করে দেওয়া যাবে। যাকে মেইলটা পাঠানো হবে, তিনি মেইলটি খোলার সঙ্গে সঙ্গে সেই টাইম কাউন্ট শুরু হয়ে যাবে এবং ওই নির্দিষ্ট সময়ের পর আর মেইলটি খোলা যাবে না।

নতুন পাঁচ ফিচার:

১. কনফিডেন্সিয়াল মোড

নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা আরও কড়া করতে গুগল নিয়ে এসেছে এই নতুন পন্থা। এখন মেইল খুলতে গেলে আপনাকে একটা পাসকোড এন্ট্রি করতে হবে, যা আপনার ফোনে এসএমএস’র মাধ্যমে যাবে। শুধু তাই নয়, জি-মেইল ব্যবহারকারীরা এখন থেকে পাঠানো মেইলের একটি এক্সপায়ারি ডেট সেট করতে পারবেন। এর ফলে প্রেরকদের মেইল, প্রাপক যাতে কপি না করতে পারেন, তার একটি ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।

২. স্মার্ট রিপ্লাইস

ব্যস্ততার কথা মাথায় রেখে গুগল কিছু টেমপ্লেট সংযোজন করেছে মেইলের উত্তর হিসেবে। অর্থাৎ এখন আপনাকে আর শব্দ খরচ করে, কিপ্যাড টাইপ করে কিছু লিখতে হচ্ছে না। তৈরি করা টেমপ্লেট ক্লিক করলেই মেইলের উত্তর দিতে পারবেন।

৩. নিউ কাস্টোমাইজেশন

এখন থেকে আপনি ইনবক্স কাস্টোমাইজ করতে পারবেন। নতুন জি-মেইলে ইনবক্সের সঙ্গে ক্যালেন্ডার সংযুক্ত থাকবে, যা আপনাকে নতুন ইভেন্ট বানাতে সাহায্য করবে। ইনবক্স থেকে না বেরিয়েই আপনি ইভেন্ট তৈরি করতে পারবেন।

৪. স্মার্ট কম্পোজ

জি-মেইলের অন্যতম বুদ্ধিদীপ্ত ফিচার এটি। এবার থেকে কোনও মেইল লেখার সময়ে গুগল নিজে থেকে মেইলের বিষয় অনুযায়ী শব্দগুচ্ছ বা ফ্রেজ দিয়ে দেবে। ফলত কম সময়ে আপনি মেইল লিখে নিতে পারবেন।

৫. হাই প্রায়োরিটি নোটিফিকেশন

আপনার ইনবক্সে মেইলের গুরুত্ব বুঝে গুগল সেগুলি রিড করবে এবং প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী ইনবক্সে রাখবে বা ডিলিট করে দেবে। কোনও ম্যালওয়্যার বা থ্রেটস-এর সম্মুখীন হলে নিজে থেকেই স্ক্যান চালাবে। তা ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে কোনও মেইলের প্রতি খেয়াল না করলে, গুগল নিজে থেকে সেগুলি আনসাবস্ক্রাইব করে দেবে।

Comments

comments