মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন ‘ভাদাইমা’র অভিনেতা, চ্যানেলের মালিক ও অ্যাডমিন

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অশ্লীল ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগে আটক করা হয়েছিল ইউটিউব চ্যানেল ‘ভাদাইমা’র সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তিনজনকে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া তারা পেয়েছেন।

এই তিনজন হলেন অভিনেতা ‘মর্ডান ভাদাইমা’খ্যাত তোফাজ্জল, চ্যানেলের মালিক ও সিডি চয়েস মিউজিকের কর্ণধার শেখ সুমন এমদাদ এবং অ্যাডিমন সবুজ আহম্মেদ।

সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত নয়টার দিকে ডিএমপি কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সোশ্যাল মিডিয়া মনিটরিং টিমের এডিসি নাজমুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা এখনও অশ্লীল কনটেন্ট ছড়াচ্ছে তাদের এসব কাজ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন ‘ভাদাইমা’র তিনজন।

এডিসি নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘মাননীয় মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার স্যারের নেতৃত্বে নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে আজ ভাদাইমার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তিনজনকে আমরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমাদের অফিসে এনেছিলাম। তারা সবাই অনুতপ্ত এবং তারা সাইবার ক্রাইম ইউনিটে মুচলেকা দিয়েছে, যে তারা কখনও আর এ ধরনের ভিডিও উৎপাদন এবং বাজারজাতকরণ করবেন না। সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন তাদের কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখবে। কাউন্সেলিং শেষে তারা রাত নয়টায় অফিস ছেড়ে যান।’

যারা অশ্লীল কনটেন্ট তৈরি করে, প্রকাশ করে, তাদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে এডিসি নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘যারাই ইন্টারনেটকে কলুষিত করবে তাদেরই আইনের আওতায় আনা হবে। ‘রেশমী এলন’ ও ‘ভাদাইমা’র অন্যান্য অনেকেই এই তালিকায় রয়েছে।’

ছাড়া পাওয়ার পর তোফাজ্জল, শেখ সুমন এমদাদ ও সুবজ আহম্মেদ একটি ভিডিও বার্তা দিয়েছেন। এতে তোফাজ্জল বলেন, ‘আমি অনেক অশ্লীল ভিডিও দিয়েছি…. আমাদের ক্ষমা করে দিবেন। যারা এখনও এসব অশ্লীল ভিডিওর সঙ্গে জড়িত, বাংলাদেশে অনেক ভাদাইমা আছেন আপনারা, তাদের কাছে আমি অনুরোধ করবো, আপনারা এ ধরনের অশ্লীল কাজ করা বাদ দিয়ে দেন। এগুলো সমাজের জন্য অনেক ক্ষতিকর।’

একই ভিডিওতে সিডি চয়েসের মালিক শেখ সুমন এমদাদ ও ভাদাইমা ইউটিউব ইমদাদুল ইসলাম বলেন, ‘আমি তোফাজ্জলের কাছ থেকে কনটেন্ট কিনে আমার চ্যানেলে প্রকাশ করতাম। আমি এজন্য দুঃখিত।’

চ্যানেলটির অ্যাডমিন সবুজ আহম্মেদ ভিডিও বার্তায় বলেন, আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। ভবিষ্যতে ব্যক্তিগতভাবে এ ধরনের কাজ আমি করবো না। যারা এসব কাজ এখনও করছেন, তাদের সেগুলো থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করছি।’

Comments

comments