ব্যাটিং ব্যর্থতায় টেস্টে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন সংগ্রহ

উইকেটে কিছুটা ঘাসের ছোঁয়া ছিল, ছিল বাতাস। তবে খেলাই যাবে না পরিস্থিতি মোটেও এমন না। তবু ওই উইকেটেই বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা অবিশ্বাস্য ব্যাটিং ব্যর্থতার নজির তৈরি করলেন। কেমার রোচের সামনে যেন থই পেলেন না কেউ। মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়ে টেস্টে নিজেদের সর্বনিম্ন সংগ্রহের রেকর্ড গড়েছে সাকিব আল হাসানের দিল। দুই অঙ্কের ঘরে রান করতে পেরেছেন কেবল লিটন দাস। পুরো ইনিংসই স্থায়ী হয়েছে মাত্র ১৮ ওভার ৪ বল।

বুধবার অ্যান্টিগার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে যা হলো তাতে মুখ লুকোবার অবস্থা যেন বাংলাদেশের। কেবল নিজেদেরই সর্বনিম্ন নয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাঠেই এটাই কোন টেস্ট দলের সর্বনিম্ন সংগ্রহ। পুরো টেস্ট ইতিহাসে সপ্তম সর্বনিম্ন। টেস্টে এত ছোট ইনিংস দেখা গেছে আর সাতবার। এর আগে ২০০৭ সালে কলম্বোর পি সারা ওভালে স্বাগতিকদের বিপক্ষে মাত্র ৬২ রানে অলআউট হয়েছিল বাংলাদেশ। এবার সেই রেকর্ড ছাপিয়ে ৫০ রানের ভেতর গুটিয়ে যাওয়ার বিব্রতকর রেকর্ড গড়ল। এই নিয়ে মোট ২১ বার টেস্টে ৫০ রানের ভেতর ইনিংস গুটিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটল। টেস্টে সর্বনিম্ন ২৬ রানে গুটিয়ে যাওয়ার রেকর্ডটি নিউজিল্যান্ডের।

শুরুটা তামিম ইকবালকে দিয়ে। রোচের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মেরে মাত্র ৫ রানে ফেরেন তিনি। ওয়ানডাউনে নামা মুমিনুল হক বুঝতে পারলেন না বলের পেস, বাউন্স। ড্রাইভ করতে গিয়ে তিনি ফেরেন ১ রান করে। কোন রানই করতে পারেননি তিন সিনিয়র ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ।

ভেতরে ঢোকা বলে এলবিডব্লিও হন মুশফিক। সাকিব আর মাহমুদউল্লাহ দুজনেই আউট হন খোঁচা মেরে। ১৮ রানেই পড়ে যায় ৫ উইকেট। প্রথম ৫ উইকেটের সবগুলোই নেন কেমার রোচ। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় ছিলেন লিটন দাস আর নুরুল হাসান সোহান।

৬ষ্ট উইকেটে এই দুজন ১৬ রানের জুটিতে কেবল এড়াতে পারলেন টেস্টে সর্বনিম্ন ২৬ রানের বিব্রতকর রেকর্ডকেই। লিটনই যা একটু রান পাচ্ছিলেন, আগে থামলেন তিনিই। টি-২০ মেজাজে রান বাড়াতে গিয়ে বল উঠিয়ে দেন আকাশে। ৫৩ বলে ২ চারে থামে তার ২৫ রানের ইনিংস।

এরপর দলকে ৩৪ রানে রেখেই আউট হন সোহান। বাকি ৩ উইকেট নিতে আর খুব বেশি সময় নেয়নি ক্যারিবিয়ানরা। ৮ রানে ৫ উইকেট নিয়ে সেরা রোচ, মিগুয়েল কামিন্স নিয়েছেন ১১ রানে ৩ উইকেট। জেসন হোল্ডারের পকেটে গেছে ১০ রানে ২ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ১৮.৪ ওভারে ৪৩ (তামিম ৪, লিটন ২৫, মুমিনুল ১, মুশফিক ০, মাহমুদউল্লাহ ০, সোহান ৪, মিরাজ ১, রাব্বি ০, রুবেল ৬*, আবু জায়েদ ২; রোচ ৫/৮, গ্যাব্রিয়েল ০/১৪, হোল্ডার ২/১০, কামিন্স ৩/১১)।

Comments

comments