রাশেদের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার আইসিটি মামলা!

সরকারি চাকুরীতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের অন্যতম শীর্ষনেতা মুহাম্মদ রাশেদ খাঁনকে আজ বেলা ১২ টার দিকে তুলে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ। রোববার দুপুরে মিরপুর ১৪ নাম্বারের বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে শাহবাগ থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে (৫৭ ধারা) রাশেদের বিরুদ্ধে মামলা করেন ছাত্রলীগ নেতা আল নাহিয়ান খান জয়।

এর আগে রাশেদের বোন রুপা বেগম সাংবাদিকদের জানান, রোববার রাজধানীর মিরপুর ১৪ এলাকার বাসা থেকে রাশেদ ও তার দুই সহযোগী মাহফুজ খান ও সুমন কবীরকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাদের নিয়ে যাওয়ার পর থেকে রাশেদের দুটি মোবাইল নম্বরই বন্ধ রয়েছে। ডিবি অফিসে যোগাযোগ করেও তাদের পাওয়া যায়নি। আমাদের পরিবার ভীষণ দুশ্চিন্তায় রয়েছে।’

এর আগে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান জানান, রাশেদ খানের নামে ঢাবি জহুরুল হলে ছাত্র ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক আল-নাহিয়ান খান জয় সকালে শাহবাগ থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা (মামলা নং-১) করেছেন।

গতকাল শনিবার বেলা ১০টা ৫০ মিনিটের দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে কোটা সংস্কার নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে হামলার ঘটনা ঘটে।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এই হামলা করেছে। এতে কোটা আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নূরসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

পরে এই হামলার প্রতিবাদে আগামীকাল রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সারাদেশের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন এবং অবরোধের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

Comments

comments