আবারও রাশেদসহ কোটা আন্দোলনের ৩ জনকে তুলে নিয়ে গেছে ডিবি (ভিডিও)

উচ্চ আদালতের নির্দেশনা উপেক্ষা করে কোটা আন্দোলনের নেতা রাশেদ খানসহ তিনজনকে আবারও গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তুলে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।

তিনি জানান, রোববার (১ জুলাই) দুপুরে মিরপুর ১৪ নম্বরের ভাষানটেক বাজার এলাকার মজুমদার রোডের ১৪ নম্বর বাসা থেকে তাদেরকে তুলে নিয়ে যায় ডিবি।

অন্য দুজন হলেন- মাহফুজ খান ও সুমন কবীর। তারা পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক।

তিনি জানান, দুপুর ১২টার পর মিরপুরে রাশেদের বাসা থেকে তাদের তিনজনকে তুলে নিয়ে গেছে ডিবি পুলিশ।

তবে এ বিষয়ে এখনও ডিবি পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, শনিবার (৩০ জুন) বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। তবে তার আগেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সেখানে অবস্থান নেয়।

সংবাদ সম্মেলনের জন্য কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের একটি দল কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আসার পর ‘শিবির ধর’, ‘শিবির ধর’ বলে অতর্কিত হামলা চালানো হয়। নুরকে ঘিরে ধরে মারধর করা হয়। এসময় ‘ওরে মেরে ফেল’, ‘কলিজা কাট’ ইত্যাদি উক্তি করে তাকে লাথি, ঘুষি, চড়-থাপ্পড় দিতে থাকে হামলাকারীরা। একপর্যায় নুর মাটিতে পড়ে গেলে শোয়া অবস্থায় তাকে লাথি মারতে থাকে তারা। পরে আহতদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে গত ১৬ এপ্রিল সোমবার বেলা দেড়টার দিকে আন্দোলনকারী সংগঠন ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের’ তিন যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খাঁন, ফারুক হাসান, নুরুল হক নূরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে একটি সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নিয়েছিল ডিবি পুলিশ।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের ওই নেতারা দাবি করেছিলেন, গোয়েন্দা পুলিশ তাদের চোখ বেঁধে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে গিয়ে কোনো জিজ্ঞাসাবাদ না করেই ছেড়ে দিয়েছে।

তবে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল- ‘তাদের চোখ বাধা হয়নি। তবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয়েছিল।’

Comments

comments