অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে রেলমন্ত্রীর ভূরিভোজ!

ঈদ দ্বিতীয় দিন গ্রামের বাড়ীতে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে ভূরিভোজের আয়োজন করলেন কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনের এমপি ও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মজিবুল হক।

গত ১৭জুন রবিবার কুমিল্লা ১১ চৌদ্দগ্রাম আসনের এমপি ও রেলপথ মন্ত্রী মুবিবুর হক তার নির্বাচনী এলাকায় দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মহা ভূরিভোজের আয়োজন করে। এই ভোজ অনুষ্ঠানে অন্তত ১২ হাজার নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করে বলে জানা যায়। চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কাউছার হানিফ জানায়, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই আয়োজনে ১২ থেকে ১৩ হাজার নেতা কর্মী ও সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করে।

মন্ত্রী এ ভূরিভোজে ৫০ মণ গরুর মাংসসহ সংশ্লিষ্ট আয়োজনে সর্বমোট অর্ধ কোটি টাকা ব্যয় করেন বলে একাধিক সূত্র থেকে জানা যায়।

ভূরিভোজে আগত নেতা-কর্মীদের তোলা সেলফি

এছাড়াও ভোজ অনুষ্ঠানে ছোট বড় প্রায় ২৫০টির অধিক গাড়ীযোগে নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। আয়োজনে অংশগ্রহণ করতে আসা নেতা কর্মীদের গাড়ী প্রতি ২হাজার টাকা যাতায়াত ভাড়া দেওয়া হয় বলেও একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

ভূরিভোজে অংশগ্রহণ করা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কুমিল্লা মহানগর আ’লীগ এর এক প্রভাবশালী নেতা জানান, মন্ত্রী সাহেব অনেক টাকা পয়সার মালিক। তিনি নেতা কর্মীদের সম্মানে প্রায়ই ছোটবড় এমন আয়োজন করে থাকেন। এছাড়াও সামনে জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে নেতা কর্মীদের চাঙ্গা রাখতে এমন আয়োজনের প্রয়োজন ছিল।

খোরশেদ আলম নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, মন্ত্রী মুজিবুল হককে সারাজীবন বলতে শুনেছি তিনি কৃষকের সন্তান। কিন্তু তিনি মন্ত্রী হওয়ার পর থেকে তার এবং তার আত্মীয় স্বজনের সমস্ত বাড়িঘর ডুপ্লেক্স বাড়িতে পরিণত করেছেন। অন্যদিকে রেল মন্ত্রনালয়ের লোকসান গুনতে হচ্ছে অঠারোশত কোটি টাকা। তিনি এমন আয়োজন প্রায় সময়ে করে থাকেন, আজকের এই আয়োজন কার অর্থে হচ্ছে কোথা থেকে এসেছে এত টাকা কেউ কি হিসাব দিতে পারবে।

উল্লেখ্য, গত অর্থবছরে বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার লোকসান হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক সংসদকে জানিয়েছেন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ রেলওয়ের নিট লোকসান ছিল ১ হাজার ৮৫২ কোটি ৯৪ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। ওই অর্থবছরে রেলের আয় ছিল ১ হাজার ২৮৯ কোটি ৩৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। আর ব্যয় ছিল ৩ হাজার ১৪২ কোটি ৩০ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

১০জুন রবিবার সংসদে টেবিলে উপস্থাপিত প্রশ্নোত্তরে সরকারি দলের সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা জানান।

Comments

comments