খালেদা বিএসএমএমইউতে যাবেন না: আইজি প্রিজন্স

চিকিৎসা নিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) যাবেন না বলে জানিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ফলে আজ তাকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে না। খালেদা জিয়ার সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন্স) সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন।

আজ মঙ্গলবার সকালে নাজিমুদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জনান।

খালেদা জিয়া মাইল্ড স্ট্রোক করেছেন এমন সন্দেহ করে বিএনপি তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়ার দাবি জানিয়েছে। সেটি প্রত্যাখ্যান করে কারা কর্তৃপক্ষ বলেছিল, বিএসএমএমইউ চিকিৎসা সেবা প্রদানকারী সর্বোচ্চ সরকারি প্রতিষ্ঠান। যদি সেখানে তার চিকিৎসার বিষয়ে কোনো সুযোগ-সুবিধার অভাব থাকে, তাহলে বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়ার প্রশ্ন আসে।

আজ আইজি প্রিজন্স জানান, খালেদা জিয়া বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা নিতে আগ্রহী নন। তিনি জানিয়েছেন, ইউনাইটেড হাসপাতাল ছাড়া অন্য কোথাও চিকিৎসা নেবেন না।

তিনি আরও বলেন, তাকে (খালেদা জিয়া) বিএসএমএমইউতে নেওয়ার জন্য নিরাপত্তাসহ আমাদের যাবতীয় প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু তিনি আগ্রহী না হওয়ায় আপাতত আমরা তাকে নিয়ে যাচ্ছি না।

নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে সরেজমিনে দেখা যায়, কারাগারের সামনে পুলিশ ও র‌্যাবের গাড়িসহ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য আলাদা একটি গাড়িও প্রস্তুত রাখা রয়েছে।

রমনা বিভাগের ডিসি মারুফ হোসেন সরদার জানান, কারা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ হয়েছে। তারা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়াকে আজ হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে না। ফলে এখানে যে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল তা শিথিল করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত। ওই দিনই তাকে কারাগারে নেওয়া হয়।

গত শনিবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক। সাক্ষাৎ শেষে কারা ফটকের সামনে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এফএম সিদ্দিকী সাংবাদিকদের জানান, খালেদা জিয়া ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ করেছিলেন। এবং তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে দ্রুত চিকিৎসার দাবি জানান।

Comments

comments