নৌকা প্রতীকে এমপি হতে চান সিইসির ভাগ্নে!

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরগরম নির্বাচনী মাঠ। দীর্ঘদিন যারা থেকে রাজনীতি করে আসছেন, মাঠে আছেন তারা। রাজনীতির বাইরে থাকা অনেকও এখন নির্বাচনী মাঠে সরব। এমনই একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার ভাগ্নে পরিচয় দেয়া এসএম শাহাজাদা।

পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা উপজেলায়) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহাজাদা। তবে তাকে বিএনপি-জামায়াতের লোকেরা সমর্থন করে বলে অভিযোগ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন রাজনীতির বাইরে থাকা শাহাজাদা আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না। এছাড়া দলে কোনো পদ না থাকলেও শাহজাদা নিজেকে সিইসির ভাগ্নে পরিচয় দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। নিজেকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বলে দাবি তার।

জানতে চাইলে পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর বলেন, শাহাজাদা সিইসির চাচাতো বোনের ছেলে বলে জেনেছি। এদের গোষ্ঠীসহ বিএনপি করে। হয়তোবা ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের পোলাপানের সঙ্গে ঘোরাফেরা করেছে। এমনতো অনেকেই আছে। সে কোনো আন্দোলন-সংগ্রামে ছিল না। দলে কোনো পদ-পরিচয় নাই, আবার হাইব্রিড লোকজন নিয়া ঘুরে।

গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সন্তোষ কুমার দে বলেন, আমি শুনেছি সে সিইসি’র ভাগ্নে।

শাহাজাদা বলেন, সিইসির আত্মীয় হওয়ায় সামাজিক সুবিধার কারণে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মানোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী তিনি।

দলীয় পদে না থাকলে মনোনয়ন পাওয়া-না পাওয়ার বিধান নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, দীর্ঘসময় চাকরি ও ব্যবসার কারণে রাজনীতি থেকে দূরে থাকলেও গত এক বছর যাবত আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে থেকে কাজ করে চলছি। এখানকার আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা আমার সঙ্গে আছেন। জনগণ আমাকে অনেক ভালোবাসেন।

সিইসির ভাগ্নে পরিচয় নির্বাচনে বাড়তি সুবিধা দেবে কিনা এ বিষয়ে শাহাজাদা বলেন, তিনি (কেএম নূরুল হুদা) আমার মায়ের আপন বড় ভাই। আত্মীয়তার বিষয়টি মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে সুবিধা বাড়তি সুবিধা দেবে বলে মনে করেন তিনি।

শাহজাদার বিষয়ে জানতে সিইসি কে এম নূরুল হুদার ফোনে একাধিকবার কল দেয়া হলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সূত্র: পরিবর্তন.কম

Comments

comments