‘ছাত্রলীগের কমিটি ইলেকশন নয় সিলেকশন’

ইলেকশন বা নির্বাচন নয় বরং সিলেকশন বা বাছাই পদ্ধতিতে নির্ধারিত হবে ছাত্রলীগের পরবর্তী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

এমনটাই জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে ‘নেতৃত্ব নির্বাচন’ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সম্মেলনে কোনো প্রার্থীর নাম প্রস্তাব ও সমর্থনের প্রয়োজন নেই।

যোগ্যতার ভিত্তিতে পারিবারিক ব্যাকগ্রাউন্ড ও মেধা- এসব বিবেচনায় নিয়ে সিলেকশন পদ্ধতিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হবে’।

ছাত্রলীগের ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়ে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘এবারের সম্মেলনে কোনো দ্বিতীয় পর্বও থাকবে না। নেতা বানানো হবে জীবনবৃত্তান্ত দেখে এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে।’

সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমানসহ আরও কয়েক জ্যেষ্ঠ্য নেতৃবৃন্দ।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির পাশাপাশি ঢাকা মহানগরের উত্তর ও দক্ষিণ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখায়ও সিলেকশনের মাধ্যমেই নেতৃত্ব চূড়ান্ত করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রসঙ্গত, কয়েক দফা পেছানোর পর আগামী মে মাসের ১১ ও ১২ তারিখ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ইতোমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে কিন্তু নেতা নির্বাচন এখনও আটকে আছে।

Comments

comments