বনানীতে বাস চাপায় পা হারানো রোজিনা মারা গেছেন

এক পা হারিয়ে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে রোজিনা আক্তার। আজ সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

ঢাকার বনানীতে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি বেপরোয়া বাসের চাপায় ডান পা হারানো রোজিনা আক্তার মারা গেছেন। আজ সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ কলেজ হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের জাতীয় সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, সকাল ৭টার দিকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রোজিনা (১৮) মারা যায়। শ্বাসকষ্টে ভুগার কারণে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) থেকে গত ২৫ এপ্রিল তাকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে নিয়ে আসা হয়েছিল।

এর আগে গত ৪ এপ্রিল রাজধানীর বাংলামটর এলাকায় দুই বাসের রেষারেষিতে এক হাত হারিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সরকারি তিতুমির কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন। ১৭ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। এই দুর্ঘটনার খবরটি তখন ব্যাপক আলোচনায় এসেছিল। রাজীবের মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই মাত্র তিন দিন বাদে বনানীতে পা হারান রোজিনা।

গত ২০ এপ্রিল বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি এলাকায় একটি বিআরটিসি’র দোতলা বাসের চাপায় ডান পা হারিয়েছিলেন রোজিনা। রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাস্তা পার হওয়ার সময় মহাখালীর দিক থেকে আসা বাসটি তাকে ধাক্কা দেয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছিলেন, বাসের ধাক্কায় রাস্তায় পড়ে গেলে দ্বিতল বাসটির পেছনের চাকা রোজিনার ডান পায়ের ওপর দিয়ে চলে যায়।

রোজিনার বাড়ি ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলায়। গত নয় বছর থেকে বনানীতে একজন সাংবাদিকের বাড়িতে তিনি গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করছিল। তাঁরা ছয় বোন ও এক ভাই। সে ও তাঁর আরেক বোন ঢাকায় কাজ করে পুরো সংসারের খরচ চালাত।

Comments

comments