জেলগেট থেকে পুনরায় গ্রেপ্তার, সন্ধানের দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

গত ১৭ তারিখ বিকেলে জামিনে বের হওয়ার সময় জেল গেট থেকে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির এর চাপাইনবাবগঞ্জ শহর শাখার সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তফাকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের পর দুই দিন পেরিয়ে গেলেও তাকে আদালতে হাজির না করায় উদ্বেগ প্রকাশ ও অনতিবিলম্বে তার সন্ধান দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার।

আজ দুপুরে চাপাইনবাবগঞ্জে নিজ বাসভবনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে গোলাম মোস্তফার সন্ধান দাবী করে তার মা বলেন, আমার বড় ছেলে গোলাম মোস্তফা গত ২৪/০১/২০১৮ আদালতের প্রতি সম্মান দেখিয়ে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। তখন থেকে সে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কারাগারে বন্দি ছিল। কিন্তু গতকাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যা ৫:৫৩ টায় আইনি প্রক্রিয়ায় সব মামলায় জামিন পেয়ে বের হলে কারাগারের মেইন ফটক থেকে সাদা পোষাকে থাকা অস্ত্রধারী আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যারা একটি সাদা রঙের মাইক্রেবাসে করে উঠিয়ে নিয়ে যায়। যার রেজি: নাম্বার ঢাকা মেট্রো-চ ৫১-৬৬৭৯। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাকে আইন অনুযায়ী আদালতে হাজির করা হয়নি। পুলিশও তার গ্রেপ্তারের কথা স্বীকার করছে না। শত চেষ্টা করেও সে এখন কোথায় আছে কি অবস্থায় আছে কিছুই জানতে পারছি না। আমরা বার বার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থার কাছে শরনাপন্ন হয়েও তার সন্ধান পাচ্ছিনা।

তিনি বলেন, আমি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কাছে আমার সন্তানের নিরাপত্তা দাবি করছি। তাকে আটক বা গ্রেফতারের কথা অস্বীকার করায় আমরা আমাদের সন্তানের ব্যাপারে গভীরভাবে উদ্বীগ্ন হয়ে পড়েছি। আমার জানামতে আমার ছেলে কোন অপরাধের সাথে জড়িত নয় । সে আইনের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে আদালতে আত্বসমর্পণ করেছিল এবং আইনি প্রক্রিয়ায় জামিন নিয়ে বেরিয়ে এসেছিল। সুতরাং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আমাদের আবেদন তাকে যেন আইন অনুযায়ী দ্রুত আদালতে উপস্থাপন করা হয়। দেশের অন্য সকল নাগরিকের মত আইনের আশ্রয় নেয়ার অধিকার আমাদেরও আছে। শুধু ছাত্রশিবিরের নেতা হবার অপরাধে যেন তাকে সরকারের অত্যাচারের মুখে পড়তে না হয়। আমরা জাতীয় মানবাধিকার সংস্থাসহ দেশি বিদেশি বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের কাছে আমার সন্তানের আইনের আশ্রয় পাবার অধিকারের ব্যাপারে সোচ্চার হওয়ার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছি। আমার ছেলে গোলাম মোস্তফার জান মালের কোন ক্ষতি হলে তার দায়ভার সরকার ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেই নিতে হবে।

তিনি অবিলম্বে ছেলের সন্ধান ও আদালতে সোপর্দ করার দাবি জানিয়ে বলেন, দয়া করে আমাদের আদরের সন্তানকে আমার বুকে ফিরিয়ে দিন। একজন মায়ের আকুতি পদদলিত করবেন না। তিনি তার ছেলের সন্ধানের জন্য সাংবাদিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

Comments

comments