এবার ছাত্রত্ব ফিরে পেল লেডি বদরুল এশা

ছাত্রী নির্যাতনের ঘটনায় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে লেডি বদরুল খেতাব পাওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানান প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী।

তিনি বলেন, তদন্ত কমিটির প্রতিবদনে নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় এশার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর নির্যাতন ও এক ছাত্রীর পায়ের রগ কেটে দেয়ার অভিযোগে গত ১০ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইফফাত জাহান এশাকে বহিষ্কার করে কর্তৃপক্ষ। পরে ছাত্রলীগ সংগঠন থেকেও তাকে বহিষ্কার করে। অবশ্য পরবর্তীতে অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি জানিয়ে ছাত্রলীগ এশার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেয়। ছাত্রলীগের অনুসরণে আজ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও একইভাবে তার ছাত্রত্ব ফিরিয়ে দিল।

ঢাবি ছাত্রী মুর্শেদার পায়ের রগ কেটে দেয়ার প্রমাণ না মিললেও ঐদিন রাতে কয়েকজন ছাত্রীকে একটি কক্ষে বন্দী করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ, শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের অডিও রেকর্ড সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল। নিজেই একজন শিক্ষার্থী হয়ে অপর কোন শিক্ষার্থীর সাথে এধরণের আচরণ অন্যায় হলেও তাকে ছাত্রলীগের দেখাদেখি নির্দোষ ঘোষণা করেছে ঢাবি প্রশাসন। শিক্ষার্থীরা মনে করেন এটি অগ্রহণযোগ্য ঘোষণা। এ ঘোষণা রাজনৈতিক স্বার্থরক্ষার জন্য পরিকল্পিতভাবে দেয়া হয়েছে।

হলের একাধিক ছাত্রীর অভিযোগ, শুধু মোর্শেদার পা কাটার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বহিষ্কার প্রত্যাহার করা ঠিক হচ্ছে না। তাঁর বিরুদ্ধে ছাত্রীদের কক্ষে আটকে নির্যাতন করার অভিযোগ ছিল। ওই কক্ষে কীভাবে ছাত্রীদের কীভাবে নির্যাতন করা হচ্ছিল, তার অডিও রেকর্ড অনলাইনে আছে। ওই কক্ষেই একজন গোপনে এটি ধারণ করেন। তা ছাড়া দীর্ঘদিন ধরেই হলের ছাত্রীরা ইফফাতের কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ। তাঁর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের। সেগুলো বিবেচনায় আনা হচ্ছে না।

Comments

comments