ওই ব্যাটা নিয়ে যা.. নিয়ে যা….

ফরীদি নুমান

সবশেষ ডাকসু নির্বাচন হয়েছিলো ১৯৯০ সালে। চারুকলার ছাত্র হিসেবে বিভিন্ন সময়ে ‘চিকা মারা’ বা ওয়াল রাইটিং-এর কাজ করতে হতো। ডাকসু নির্বাচনেও সেসময়ে চিকা মারার প্রচুর ‘খ্যাপ’ মারতাম। চিকা মারার কাজ হতো সাধারণত রাতের বেলায়।

একরাতে নীলক্ষেত-নিউমার্কেট এলাকায় চিকা মারার কাজ করছিলাম। দলের কর্মীরা মিলে আমরা প্রায় ২৫-৩০ এলাকার বিভিন্ন দেয়ালে রং-ব্রাশ দিয়ে বড় বড় অক্ষরে নির্বাচনে বিভিন্ন প্রাথীকে ভোট দেয়ার আহ্বান সম্বলিত লেখা লিখছিলাম। রাতে বড় এক ট্রাকে পুলিশ টহল দিচ্ছিলো। অফিসারটি বেশ ভদ্র ভাবেই জিজ্ঞেস করলো- এতরাতে কি হচ্ছে! আমরা সহজভাবে বললাম, ডাকসু নির্বাচনের কাজ চলছে। ভদ্রলোক কোন কথা না বাড়িয়ে চলে গেলেন।

খানিক বাদে তিনজন পুলিশ নিয়ে একটা টেম্পুতে আরেক দল পুলিশ এলো। একইরকম প্রশ্ন আর আমাদের উত্তরও একইরকম ছিলো। কিন্তু এই অফিসারটি কথাবার্তা খুব রাফ ছিলো। আমাদের উত্তরে সে খুশী হতে পারলো না। “আজাইরা কাম। বিশ মিনিটের মধ্যে এলাকা ছাইড়া চলে যাও, নইলে সবগুলানরে বাইন্ধা লকাপে ভরমু।” বলে চলে গেলো।

আমাদেরও মাথা চড়ে গেলো। চিকা মারার কাজে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সবাইকে একখানে করে আমরা লেখার কাজ চালিয়ে যেতে থাকলাম। আমাদের দলে প্রায় ২৫-৩০ জন । আর পুলিশের টেম্পুতে ৯ জনের বেশী ধরবে না। তাছাড়া টেম্পুতে আরো তিনজন পুলিশ আছে। দেখি ব্যাটা কতজনকে নিতে পারে।

খানিক বাদে পুলিশের টেম্পুটি ঠিকই এলো। কিন্তু আমাদের লোকজন বেশি দেখে আর দাড়ালো না। চলে যাচ্ছিলো দেখে কয়েকজন সেটাকে ধাওয়া করলো… “ওই ব্যাটা নিয়ে যা.. নিয়ে যা….”

লেখকের ফেসবুক থেকে

Comments

comments