ভারত পালিয়ে যাওয়ার সময় ধরা খেল যুবলীগ নেতা কাউন্সিলর মোস্তাকিম

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি সীমান্তের ডাঙাপাড়ার সাতকুড়ি বাজার এলাকায় অবস্থান করছে বগুড়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক (এডি) শাহজাহান কবিরের ওপর সশস্ত্র হামলার প্রধান আসামি মোস্তাকিম রহমান। যিনি বগুড়ার পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা।

পুলিশ হেডকোয়ার্টর্স ইন্টেলিজেন্স উইংয়ের মাধ্যমে এ খবর নিশ্চিত হওয়া মাত্র অভিযান শুরু করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। টানা কয়েক ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান চালিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার আগেই শুক্রবার (৩০ মার্চ) ভোরে মোস্তাকিমকে গ্রেফতার করা হয়।

শুক্রবার (৩০ মার্চ) বিকেলে বগুড়া জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন পুলিশ সুপার (এসপি) আলী আশরাফ ভূঞা।

অভিযানে নেতৃত্বদানকারী এসপি আলী আশরাফ বলেন, গ্রেফতার মোস্তাকিম বগুড়া শহরের খান্দার বিলেরপাড়া এলাকার মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে। ঘটনার কয়েকদিন আগে কাউন্সিলর মোস্তাকিমের নেতৃত্বে ৬-৭ জন যুবক পাসপোর্ট অফিসে যায়। এ সময় তারা শাহজাহান কবিরকে বেশ কয়েকটি পাসপোর্ট করে দেওয়ার জন্য চাপ দেয়। এতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। পরে মোস্তাকিমসহ অন্যরা অফিস থেকে বের হয়ে যায়।

সেই ঘটনার জের ধরেই এডি শাহজাহানের ওপর সশস্ত্র হামলা করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মোস্তাকিম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে।

Comments

comments