লিফটের চাপাতে নিভেই গেল ছোট্ট আলভিরার প্রাণ

রাজধানীতে লিফটের দরজায় চাপা পড়ে নয় বছরের এক শিশু মারা গেছে। গতরাত সাড়ে নয়টার দিকে শান্তিনগরের আঠারো তলা একটি ভবনে এ ঘটনা ঘটে। ভবনের বাসিন্দাদের অভিযোগ, লিফট ত্রুটিপূর্ণ থাকার পরেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি ভবন ব্যবস্থাপনা কমিটি। তবে, কমিটির সভাপতি বলছেন, নিম্নমানের লিফটের কারণেই এই দুর্ঘটনা।

রাজধানীর শান্তিনগর মোড়ে গ্রিনপিচ নামে আঠারো তলা ভবন। এখানেই ১৫ তলায় শিপলুর রহমান ও উম্মে সালমা দম্পতি থাকতেন তাদের নয় বছর বয়সী মেয়ে উম্মে আলভিরা রহমানকে নিয়ে। গতরাত সাড়ে নয়টার দিকে বাবা মায়ের সঙ্গে বাইরে বের হতে ১৫ তলা থেকে নিচে নামার সময় আলভিরা লিফটের দরজার দুই পাল্লার মাঝে চাপা পড়ে। এতে মাথায় গুরুতর আঘাত পায় সে। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা বলছেন, লিফট ত্রুটিপূর্ণ থাকার পরেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি ভবন পরিচালনা পর্ষদ।

একজন বাসিন্দা বলেন, ‘আজকে এই দুর্ঘটনা আমার বাচ্চার সঙ্গেও হতে পারত। আমি আজকে সমবেদনা জানাতে এখানে এসেছি। কিন্তু আমার বাচ্চার সঙ্গে হলে আমি ছেড়ে দিতাম না।’

আরো একজন বলেন, ‘প্রায়ই লিফটের সেন্সর কাজ করে না। কোন লিফটম্যান থাকে না।’

এমনকি এই দুর্ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই ভবনের অন্য একটি লিফটে পনের মিনিট আটকে ছিলেন আরো এক বাসিন্দা।

এ বিষয়ে ভবন পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি বলছেন, নিম্নমানের লিফটের কারণেই এ দুর্ঘটনা। লিফটের ত্রুটি বিষয়ে গতকালই দুর্ঘটনার আগেই আলোচনায় হয়েছিল বলে দাবি তার।

ভবন পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর মিয়া বলেন, ‘লিফটের বয়স হয়েছে। ৭-৮ বছর হয়ে গেছে। লিফটের সার্ভিসিং ঠিক ছিল; লিফটম্যানও ছিল। কিন্তু এটা একটা দুর্ঘটনা।’

উত্তরার বারো নম্বরে সেক্টরে আলভিরা সমাহিত করা হবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

Comments

comments