সরকার যা করছে তাকে বহুদলীয় গণতন্ত্র বলে না: ড. কামাল

সংবিধান বিশেষজ্ঞ ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আমরা বহুদলীয় গণতন্ত্র চাই। কিন্তু বর্তমান সরকার যা করছে-এটাকে বহুদলীয় গণতন্ত্র বলে না।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে জয়পুরহাট আইনজীবী ভবনে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় ড. কামাল হোসেন এ কথা বলেন।

একই অনুষ্ঠানে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, প্রধান বিচারপতিকে অপদস্ত করে গলাধাক্কা দিয়ে দেশ ত্যাগে বাধ্য করার মতো অন্যায় কাজটি করেছে এ সরকার। এ ছাড়া জামিন লাভের পরও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিয়ে এ সরকার প্রমাণ করেছে তারা বিচার ব্যবস্থাকে দলীয়করণ করেছে।

বক্তব্য দিতে গিয়ে এ দুই নেতা সরকারের কড়া সমালোচনা করে আরো বলেন, পেশিশক্তি ও সরকারের প্রভাবমুক্ত নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি হলেই কেবল তাদের দল আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।

ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘সংবিধানে কী আছে, আপনারাও জানেন, আমিও জানি। আমাদের বহুদলীয় গণতন্ত্র। দল অবশ্যই থাকবে। এক দল না, বহুদল। এটা প্রমাণিত, বাঙালিরা আমরা বহুদলীয় গণতন্ত্র চাই। আজকে সময় এসেছে, এটা আমাদের বোঝার। দল যা ইচ্ছা তাই করতে পারবে- এটা দলের ব্যাখ্যা হলো অপব্যাখ্যা। মেজরিটি অল থাকলেও, তিনশ আসনের মধ্যে তিনশ সিটও অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে অর্জন করে, ঘোষণা করে না, তারপরও কিন্তু যা ইচ্ছা তা করার ক্ষমতা তাদের হয়ে যায় না। কেননা তারা সংবিধানের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। সংবিধানের যে মৌলিক বিষয়গুলো আছে, বেসিক স্ট্রাকচার, মৌলিক কাঠামো তাতে হাত তারা দিতে পারে না যদিও ৩০০ মেজরিটি তাদের থাকে।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জয়পুরহাট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহিনুর রহমান শাহিন প্রমুখ।

ড. কামাল হোসেন ও কাদের সিদ্দিকী পরে স্থানীয় জয়পুরহাট সরকারি রামদেও বাজলা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক সমাবেশে বক্তৃতা করেন।

Comments

comments