ফারমার্স ব্যাংক কেলেঙ্কারিতে জড়িতদের শেয়ার বাজেয়াপ্ত করুন: টিআইবি

ফারমার্স ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িতদের শেয়ার বাজেয়াপ্ত করে সেই শেয়ারের অর্থ আমানতদারীদের ফেরত দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। বিভিন্ন গ্রাহকের আমানতের অর্থ ফেরত দিতে ফারমার্স ব্যাংকের ব্যর্থতার প্রেক্ষিতে এ আহ্বান জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুসন্ধানে অনিয়ম-জালিয়াতির মাধ্যমে বিতরণ করা ঋণ কেলেঙ্কারির নতুন করে আরও তথ্য প্রকাশিত হওয়ায় গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) টিআইবি’র সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ উদ্বেগের কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘গণমাধ্যম সূত্রে জানা যাচ্ছে যে অনিয়ম-জালিয়াতির মাধ্যমে আমানতের বেশি ঋণ দেওয়াসহ অব্যবস্থার কারণে ফারমার্স ব্যাংক গ্রাহকদের আমানতের অর্থ ফেরত দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। ব্যাংকটির বিতরণ করা ঋণের অর্ধেকেরও বেশি ফেরত আসবে না— কেন্দ্রীয় ব্যাংক সম্প্রতি এমন আশঙ্কা প্রকাশ করায় আমানতকারীরা প্রাপ্য অর্থ ফেরত পাওয়া পাবেন কিনা, কিংবা পেলেও কবে পাবেন, তা নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে এবং ব্যাংকিং খাত সম্পর্কে জনমনে অনাস্থা সৃষ্টি হয়েছে। দুর্নীতি ও জালিয়াতির কারণে সৃষ্ট গ্রাহকদের এ হয়রানির দায় ফারমার্স ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিশেষকরে পরিচালনা পর্ষদের প্রাক্তন ব্যক্তিরা কোনোভাবে এড়াতে পারেন না।’

ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান ও নিরীক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যানসহ ঋণ জালিয়াতিতে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান ড. ইফতেখারুজ্জামান। তিনি বলেন, ফারমার্স ব্যাংকে বড় ধরনের আর্থিক অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান ও নিরীক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান দায়িত্বে থাকা অবস্থায়। অনিয়ম ও জালিয়াতিনির্ভর ঋণ মঞ্জুরে তাদের সম্ভাব্য সম্পৃক্ততার তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদনে চিহ্নিত হয়েছে। ক্ষমতার অপব্যবহার ও প্রভাব খাটিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতি ও জালিয়াতির মাধ্যমে অযোগ্য ও অসাধু ব্যক্তিদের ঋণ বিতরণের মাধ্যমে কমিশন ভোগ করে ব্যাংকটির সাবেক পরিচালনা পর্ষদের একাংশ নৈতিক স্খলনের নির্লজ্জ ও গর্হিত দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।ঋণ জালিয়াতিসহ অন্যান্য অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের অবশ্যই যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ায় জবাবদিহি ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

Comments

comments