সুনামগঞ্জে ফের ৫ জানুয়ারী স্টাইলের নির্বাচন

সুনামগঞ্জ পৌরসভার উপনির্বাচনে ৫ জানুয়ারীর কলঙ্কিত নির্বাচনের মতই ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে শহরের উত্তর আরপিন নগর পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার সফিকুল ইসলাম খন্দকার।

তিনি বলেন, ব্যালট পেপারের একটি বই ছিনতাই হয়েছে। এতে ৪০টি পাতা ছিল। বিষয়টি তারা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন।

এদিকে শহরের লবজান উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটাররা অভিযোগ করেছেন, আইডি কার্ডের নম্বরের সঙ্গে ভোটার তালিকায় থাকা নম্বরের মিল না থাকায় ও কেন্দ্রের অনেক ভোটার ভোট দিতে পারছেন না।

এছাড়া পিটিআই কেন্দ্রে জোর করে ভেতরে ঢোকার সময় পুলিশের সঙ্গে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর সমর্থক রুবেলের ধাক্কাধাকি হয়েছে। এসময় পুলিশের বন্দুকের আঘাতে রুবেলের মাথা ফেটে গেছে।

সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম বললেন, পিটিআই কেন্দ্রে সামান্য ঝামেলা হয়েছে। এটি মিটমাট হয়ে গেছে।

সুনামগঞ্জ পৌরসভা উপনির্বাচনে ভোট শুরু হয়েছে সকাল ৮টায়। এতে ৪২ হাজার ৩২২ জন ভোটার বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ২৩ কেন্দ্রে ভোট দেবেন।

গত পহেলা ফেব্রুয়ারি পৌরসভার মেয়র আয়ুব বখত জগলুলের আকস্মিক মৃত্যুতে এই পদ শুন্য হয়।

উপনির্বাচনে মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত নাদের বখত, স্বতন্ত্র প্রার্থী হাসনরাজার প্রপৌত্র দেওয়ান গণিউল সালাদীন, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী দেওয়ান সাজাউর রাজা সুমন। তিনি গণিউল সালাদীনের চাচাতো ভাই।

সুনামগঞ্জ পৌরসভায় সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর ভোট হয়। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচিত হন আয়ূব বখত জগলুল। তিনি পেয়েছিলেন ১৪ হাজার ৮৪৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান গণিউল সালাদীন। তিনি পেয়েছিলেন ১০ হাজার ৪৮৬ ভোট।

তৃতীয়স্থানে ছিলেন বিএনপির প্রার্থী মো. শেরগুল আহমেদ। তিনি পেয়েছিলেন ২ হাজার ৪১৪ ভোট।

জেলা নির্বাচন অফিসার, পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল মোতাল্লেব জানান, শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণের জন্য ২৩ কেন্দ্রকেই এবার ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করে পর্যাপ্ত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে।।

Comments

comments