যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালনের আহ্বান জানিয়েছে জামায়াত

আগামী ২৬ মার্চ যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালনের আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি মাওলানা আ.ন.ম. শামসুল ইসলাম আজ বিবৃতি প্রদান করেছেন। গণমাধ্যমে পাঠানো ও দলীয় ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এই বিবৃতিতে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীরের পক্ষ থেকে জাতীয় ঐক্য, গণতন্ত্র, ভোটাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার প্রত্যয় নিয়ে আগামী ২৬ মার্চ যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালনের জন্য বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সকল শাখা এবং দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর বলেন, ‘আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। আমাদের জাতীয় জীবনে এ দিনের তাৎপর্য ও গুরুত্ব অপরিসীম। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও লাখ জনতার সীমাহীন ত্যাগ এবং কুরবানীর বিনিময়ে আমরা মহান স্বাধীনতা অর্জন করেছি। ক্ষুধা, দারিদ্র ও বেকারত্ব মুক্ত কল্যাণমূলক একটি দেশ প্রতিষ্ঠার জন্য এ দেশের সাহসী সন্তানেরা যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল, তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। এ দেশের মানুষের স্বপ্ন ছিল স্বাধীনতার মাধ্যমে গণতান্ত্রিক অধিকার, ভাতের অধিকার, ভোটের অধিকার ও বেঁচে থাকার অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। জনগণের জানমাল, ইজ্জত-আব্রুর নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় স্বাধীনতার ৪৭ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও জনগণের সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি। সরকার জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। দেশে চলছে সীমাহীন দুর্নীতি, সন্ত্রাস, লুটপাট, হত্যা, ধর্ষণ, গুম, অপহরণ ও নৈরাজ্য।

জাতির উন্নতি ও কল্যাণের জন্য সর্বাগ্রে প্রয়োজন জাতীয় ঐক্য ও গণতন্ত্র এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা। কিন্তু সরকার জাতীয় ঐক্য ধ্বংস করে জাতিকে বিভক্তির দিকেই ঠেলে দিচ্ছে এবং গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে হলে দল-মত-নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, হত্যা, খুন, গুম, অপহরণ ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা বাংলাদেশকে এক রক্তাক্ত জনপদে পরিণত করেছে। দুর্নীতি, দুঃশাসন, দলীয়করণ, বাক-স্বাধীনতা ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরণ করে সরকার দেশকে এক অনিশ্চয়তার গহ্বরে নিপতিত করেছে। ইসলাম ও জাতীয় মূল্যবোধ এবং ঈমান-আক্বিদার ওপর চলছে সর্বগ্রাসী হামলা। দেশের আলেম-ওলামা-পীর মাশায়েখগণও সরকারের জুলুম নিপীড়ন থেকে রেহাই পাচ্ছেন না। এ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। জনতার আন্দোলনের মাধ্যমেই মহান স্বাধীনতার স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে ইনশাআল্লাহ।’

Comments

comments