স্বৈরাচার দিবসেই এরশাদের মহাসমাবেশ!

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আজ শনিবার জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ

আজ ২৪ মার্চ। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে একটি কালো দিন। ১৯৮২ সালের এই দিনে বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায় সৃষ্টি হয়। এ দিনে এরশাদ রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে সামরিক ফরমান জারি করে শহীদ জিয়ার পুনরুজ্জীবিত বহুদলীয় গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিলেন। সেই সাথে কেড়ে নেয়া হয়েছিল বাক, ব্যক্তি, বিবেক, মুদ্রণ ও সমাবেশের স্বাধীনতাসহ মানুষের সকল নাগরিক স্বাধীনতা।

অবাক করার মত বিষয় হলেও সত্য যে, সেই স্বৈরাচার দিবসেই অনেকটা ঢাক-ঢোল পিটিয়ে সমাবেশের আয়োজন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত এরশাদ জানালেন যে, ‘ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য জাতীয় পার্টি প্রস্তুত!’ তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টি সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠন করে ইতিহাস গড়ার ঘোষণাও দেন এরশাদ।’

মহাসমাবেশের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ বলেন, ‘এত বড় জনসমুদ্র আর কখনো দেখিনি। ঢাকার রাস্তা অবরুদ্ধ। সব রাস্তা বন্ধ। মানুষ চলতে পারছে না। এ মধ্য দিয়ে প্রমাণ করেছে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় যাওয়ার শক্তি অর্জন করেছে।’ তিনি নেতা–কর্মীদের উদ্দেশ্য বলেন, ‘উই আর রেডি অর নট? উই আর রেডি, উই আর রেডি, উই আর রেডি, উই আর রেডি।’

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ বলেন, ‘একটা কথাই বলি, একটা বার্তা আবার দেই, আগামী নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করার মত শক্তি আমরা অর্জন করেছি।’

তিনি বলেন- ‘শেষ কথা। আমরা ক্ষমতায় যাবার জন্য সব প্রস্তুত কিনা, সব হাত তোলেন, সবাই হাত তোলেন। আমরা বাংলাদেশের ১৬ কোটি জনগণকে দেখিয়েছি।’ এসময় আবেগে উত্তেজিত হয়ে ‘আমরা প্রস্তুত, আমরা প্রস্তুত, আমরা প্রস্তুত’ বলে চিৎকার করতে করতে বক্তব্য শেষ করেন।

১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত জাতির জীবনে এক কলঙ্কময় অধ্যায় রচিত হয়েছিল এরশাদের হাত ধরে। আর সেই দিনেই জনসম্মুখে সমাবেশের আয়োজন করে ক্ষমতা দখলের জন্য ‘প্রস্তুত, প্রস্তুত’ বলে বারবার চিৎকার করলেন স্বৈরশাসক এরশাদ! গৃহপালিত বিরোধী দলের খেতাব নিয়ে ক্ষমতা দখল করতে জাতীয় পার্টি আসলেই কতটা প্রস্তুত তা সময় বলে দেবে।

Comments

comments