আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপে আফগানরা

যদি আফগানিস্তান-আয়ারল্যান্ড ম্যাচটা টাই হতো তবেই একমাত্র জিম্বাবুয়ে পেত বিশ্বকাপের টিকিট। তেমনটা অবশ্য হয়নি। স্বাগতিকদের দর্শক বানিয়ে আফগানিস্তান চলে গেছে ২০১৯ বিশ্বকাপের মূল মঞ্চে। বাছাই পর্বের ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে পাঁচ উইকেটে পরাজিত করেছে আসগর স্টানিকজাইয়ের দল।

জিম্বাবুয়ের দুঃখটা বেশ ভালই বুঝতে পারছে আইরিশরাও। বিশ্বকাপের মঞ্চে যাওয়ার লড়াইয়ে তারাও ছিল প্রতিন্দ্বন্দী। প্রথমে ব্যাট করে স্কোরকার্ডে ২০৯ রানের পুঁজি গড়ে আয়ারল্যান্ড। পাঁচ বল আর পাঁচ উইকেট হাতে রেখে আইরিশদের কাঁদিয়ে বিশ্বকাপের টিকিট নিয়ে নেয় আফগানরা।

হারারেতে লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে আফগানিস্তানকে দারুণ সূচনা এনে দেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। ৮৬ রানের জুটি গড়ে প্রথমে বিদায় নেন অর্ধশতক হাঁকানো মোহাম্মদ শেহজাদ। ৫০ বলে ছয় চার আর দুই ছয়ে শেহজাদের ব্যাট থেকে আসে ৫৪ রান।

ফর্মে থাকা রহমত শাহের পরপরই ফিরে যান আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান গুলবাদিন নাইব। মোহাম্মদ নবিও করতে পারেননি নামের প্রতি সুবিচার। অবশ্য অধিনায়ক স্ট্যানিকজাই আর সামিউল্লাহ শেনওয়ারি দলকে এগিয়ে নেন দৃঢ়তার সঙ্গেই। ২৭ রান করে শেনওয়ারি আউট হলেও দলপতি স্টানিকজাই ৩৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে ভেড়ান জয়ের বন্দরে।

এর আগে হারারে স্পোর্টস গ্রাউন্ডে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ভাল শুরু পেলেও সেটা কাজে লাগাতে পারেনি আইরিশরা। ৮৭ বলে তিন চার আর এক ছয়ে সর্বোচ্চ ৫৫ রান এসেছে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পল স্টার্লিংয়ের ব্যাট থেকে। ও’ব্রেইন দুই ভাইয়ের ব্যাটেও ছিল রান। কেভিন করেছেন ৪১ আর নিলের সংগ্রহ ৩৬ রান। আফগানদের পক্ষে রশিদ খান নিয়েছেন তিন উইকেট। ম্যাচ সেরার পুরস্কারটা গেছে মোহাম্মদ শেহজাদের হাতে।

প্রথম দল হিসেবে ইতোমধ্যেই নিজেদের বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গতকাল বৃহস্পতিবার জিম্বাবুয়ে হেরে যাওয়ায় এই ম্যাচটি আফগান বা আইরিশদের দুই দলের জন্যই হয়ে যায় গুরুত্বপূর্ণ।

আফগানিস্তান চূড়ান্ত পর্বে চলে যাওয়ায় প্রায় ৩৬ বছর পর জিম্বাবুয়ে ছাড়া বিশ্বকাপ দেখতে হবে দর্শকদের। অন্যদিকে আইরিশরা ২০০৭ সালের পর থেকে সবকটি বিশ্বকাপেই অংশ নিয়েছে।

Comments

comments