মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভ

ঢাবির টিএসসি মোড়ে আজ রোববার মামলা তুলে নিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

পুলিশের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন কোটা সংস্কারের আন্দোলনকারীরা। তাঁরা এ দাবিতে আজ রোববার বেলা ১১টায় বিক্ষোভ করেছেন।

সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় ৷এতে অংশগ্রহণ করেছেন প্রায় তিন হাজার ছাত্রছাত্রী ও চাকরিপ্রার্থী ৷

মিছিলটি ঢাবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শাহবাগ মোড়, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি), নীলক্ষেত মোড় ঘুরে আবার সন্ত্রাসবিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়। সেখানে সমাবেশ করেন আন্দোলনকারীরা।

কোটা সংস্কারের দাবিতে গত ১৪ ফেব্রয়ারি থেকে পাঁচ দফা দাবিতে আন্দোলন করে আসছে চাকরিপ্রত্যাশীরা। তাদের দাবিগুলো হলো—কোটা সংস্কার করে ৫৬ থেকে ১০ শতাংশে কমিয়ে আনা, কোটাপ্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্যপদগুলোতে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া, চাকরি নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার না করা, কোটার কোনো ধরনের বিশেষ নিয়োগ পরীক্ষা না নেওয়া, চাকরি ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন কাটমার্ক ও বয়সসীমা নির্ধারণ করা।

বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করা চাকরিপ্রত্যাশী সাজু বলেন, ‘আমাদের দাবি কোনো অযৌক্তিক দাবি নয়। এরই মধ্যে সুশীল সমাজও কোটা সংস্কারের পক্ষে কথা বলছেন। আমরা আশা করছি, তরুণদের মনের ভাষা সরকার বুঝতে পারবে এবং কোটা সংস্কার করবে।’

আরেকজন বিক্ষোভকারী ইমন বলেন, ‘আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে পুলিশ হামলা করে উল্টো আমাদের নামে মামলা দিয়েছে। আমরা সরকারকে বলব, এই মামলা দ্রুত প্রত্যাহার করতে।’

বিক্ষোভ মিছিল শেষে আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক হাসান আল মামুন বলেন, আগামী ২৫ মার্চ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান হবে শাহবাগ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এবং ২৯ মার্চ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিকেল ৪টায় নাগরিক সমাবেশ।

গত ১৪ মার্চ আন্দোলনকারীরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি জমা দেওয়ার জন্য একটি মিছিল নিয়ে হাইকোর্টের সামনে এলে পুলিশ তাঁদের ওপর কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ ও লাঠিপেটা করে। এতে ১৫ থেকে ২০ আন্দোলনকারী আহত হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

Comments

comments