অধ্যাপক মুজিব গ্রেফতারের খবরে সারাদেশে জামায়াতের তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ

ডেস্ক রিপোর্ট: অন্যায়ভাবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও রাজশাহী-১ আসনের সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১১ নেতাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে রাজধানীসহ সারাদেশে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল করেছে সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা। আজ সোমবার সকালে রাজশাহীর হেতেম খাঁ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয় বলে খবরে প্রকাশ। অধ্যাপক মুজিব তার অসুস্থ মায়ের সাথে সাক্ষাত করতে রাজশাহীতে গিয়েছিলেন। সেখানেই তার সাথে সাক্ষাত করতে জামায়াতের আঞ্চলিক নেতৃবৃন্দ এসেছিলেন বলে জানা গেছে।

আটক জামায়াত নেতৃবৃন্দের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবর রহমান, রাজশাহী মহানগরী আমীর অধ্যাপক আবুল হাশেম, রাজশাহী মহানগরী সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসাইন, আব্দুল খালেক-আমীর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আমীর আবু জর গিফারী, সাবেক চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আমীর রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী জেলা পূর্ব আমীর রেজাউর রহমান, রাজশাহী জেলা পূর্ব নায়েবে আমীর মাইনুল ইসলাম, বোয়ালিয়া থানা সহকারী সেক্রেটারী মুজিবুর রহমান ইসলামী ছাত্রশিবিরের রাজশাহী জেলা পশ্চিম সভাপতি তৈয়ব আলী।

সারাদেশে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীরের গ্রেফতারের খবরে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সারাদেশে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেছে সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা। অবিলম্বে তারা অধ্যাপক মুজিবসহ আটককৃত সকল জামায়াত নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবি করেন।

অধ্যাপক মুজিব গ্রেফতারের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তরের বিক্ষোভ মিছিল

ঢাকা মহানগরী উত্তর: ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াত অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১১ জামায়াত নেতার গ্রেফতারের খবরে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় রাজধানীর মিরপুর এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর শাখা। এসময় নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে নেতা-কর্মীদের শ্লোগান দিতে দেখা গেছে।

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাবেক এমপি জননেতা অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবিতে মহানগরী কর্মপরিষদ সদস্য শামসুর রহমানের নেতৃত্বে আজ বিকাল ৪টায় রাজধানীর খিলগাঁও রেলগেট এলাকায় এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ। মিছিলটি রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

অধ্যাপক মুজিব গ্রেফতারের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের বিক্ষোভ মিছিল

বিক্ষোভ মিছিল পরর্বতী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শামসুর রহমান বলেন, সরকার দেশ থেকে নির্বাচন ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে নির্বাসনে পাঠিয়ে দেশে একদলীয় শাসন কায়েমের জন্য গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

রাজশাহী মহানগরী: ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াত অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১১ জামায়াত নেতার গ্রেফতারের খবরে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নগরীর কোর্ট বাজারে বিকাল ৩ টায় এক বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরী শাখা।

অধ্যাপক মুজিব গ্রেফতারের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগর জামায়াতের বিক্ষোভ

মিছিল উত্তর সমাবেশে জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, মিছিল মিটিং করা এদেশের প্রত্যেক নাগরিক ও দলের গণতান্ত্রিক এবং সাংবিধানিক অধিকার। সেই অধিকারকে হরণ করে সরকার জামায়াতের উপর প্রতিহিংসা চরিতার্থ করছে। আসলে সর্বক্ষেত্রে ব্যর্থ এই সরকার দিশেহারা হয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্ন দিকে ফেরাতে বিরোধীদলের নেতা-কর্মীদের ওপর হত্যা, নির্যাতন, গ্রেফতার-অভিযান চালাচ্ছে। তারা পুলিশ বাহিনীকে দলীয় কর্মীর মত ব্যবহার করছে।

নেতৃবৃন্দ অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃত জামায়াত নেতাদের মুক্তির দাবী জানান এবং সরকার ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকল সদস্যকে সংযত, গণতান্ত্রিক ও সভ্য আচরণের জন্য আহ্বান জানান।

সিলেট মহানগরী: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাবেক এমপি জননেতা অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে সিলেট মহানগর জামায়াত।

ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াতের মুক্তির দাবিতে সিলেট মহানগর জামায়াতের তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ

এসময় সরকারের বাকশালী আচরণের তীব্র প্রতিবাদ জানান মহানগর জামায়াতের নেতৃবৃন্দ। অবিলম্বে তারা জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। সিলেট মহানগর জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, অবৈধ ক্ষমতার মোহে আওয়ামীলীগ সরকার উন্মাদ হয়ে পড়েছে। তারা হিতাহিত জ্ঞান ভুলে বিরোধী রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের উপর গ্রেফতার নির্যাতনের স্টীম রোলার চালাচ্ছে। আদর্শিক মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়ে ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় ইতোমধ্যে জামায়াতের আমীর মকবুল আহমদ ও সেক্রেটারী জেনারেল ডা: শফিকুর রহমান সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে।অবিলম্বে আমীরে জামায়াত মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারী জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান সহ কারাগারে আটক জামায়াত নেতৃবৃন্দসহ সকল রাজবন্দীদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন তারা।

ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াতের মুক্তির দাবিতে নারায়ণগঞ্জ মহানগর জামায়াতের তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ

নারায়ণগঞ্জ মহানগরী: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান সহ ১১ জন নেতাকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর জামায়াত।

ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ ও নিন্দা: এদিকে ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াতের গ্রেফতারের খবরে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী উত্তর।

ভারপ্রাপ্ত আমীরে জামায়াতের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী উত্তরের তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ

কেন্দ্রীয় প্রকাশনা সম্পাদক রাজিফুল হাসান বাপ্পির নেতৃত্বে বিকাল চারটায় মিছিলটি বাড্ডা নতুন বাজার থেকে শুরু হয়ে শাহজাতপুর গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগরী উত্তরের সভাপতি জামিল মাহমুদ, মহানগরী সেক্রেটারি আজিজুল ইসলাম সজিবসহ মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নিয়ে কেন্দ্রীয় প্রকাশনা সম্পাদক রাজিফুল হাসান বাপ্পি বলেন, গণতন্ত্রের লেবাসদারী সরকার আদর্শিক ও রাজনৈতিকভাবে পরাজিত হয়ে অবৈধ ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করতে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীরসহ নেতৃবৃন্দকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। সরকার একদিকে আইনের শাসনের কথা বলছে অন্যদিকে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে গ্রেপ্তার, হামলা-মামলা ও নির্যাতন-নিপীড়নের মাধ্যমে দমন করার কৌশল গ্রহণ করেছে। সরকার দেশের বিরোধী মতকে সহ্য করতে পারছে না। বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের দমন-নিপীড়নের মাধ্যমে কোণঠাসা করে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে একের পর এক অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু দেশ প্রেমিক ছাত্রজনতা সরকারের অশুভ ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন হতে দেবে না।

এদিকে অন্যায়ভাবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১১ নেতাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ ও অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবী জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন উদ্দেশ্যেই বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াত ইসলামীর নেতৃবৃন্দকে গ্রেপ্তার করছে সরকার। একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে অবৈধ সরকারের জুলুম নিপীড়ন অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। শেষ পর্যন্ত ঘরোয়া পরিবেশ থেকে ও দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকেও গ্রেপ্তার করতে কুণ্ঠাবোধ করছে না। যার সর্বশেষ নজীর দেশের অন্যতম বৃহত্তর রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ পর্যায়ের ১১নেতাকে আজ রাজশাহী শহরের একটি ঘরোয়া সাংগঠনিক বৈঠক থেকে গ্রেপ্তার করা। একটি প্রাচীন রাজনৈতিক দলের বয়োবৃদ্ধ প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে এমন গ্রেপ্তার এদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে অপরাজনীতির উদাহরণ হয়ে থাকবে। এই অমানবিক ও ফ্যাসিবাদী আচরণ করে অবৈধ সরকার বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহমর্মিতার সব পথকে রুদ্ধ করে রাজনৈতিক দেওলিয়াত্বের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে।

Comments

comments