যৌন হয়রানির শিকার নারীদের নিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কুরুচীপূর্ণ স্ট্যাটাস

গতকাল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৭ ই মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত আওয়ামী লীগের জনসভায় আগত বিভিন্ন মিছিল থেকে পথচারী নারীদের যৌন হয়রানি করা হয়েছে। এ নিয়ে বেশ কয়েকজন নারী সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ক্ষোভ ও ঘৃণা প্রকাশ করেছেন। অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি, গায়ে হাত তোলা, পানি ছিটিয়ে দেয়াসহ বেশ কিছু গুরুতর অভিযোগ আসে সমাবেশে মিছিল নিয়ে যোগ দিতে আসা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় বইছে। সামাজিক মাধ্যমের এই সমালোচনার প্রভাব বেশ কিছু মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায়ও লক্ষ্য করা গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে এমন দিনে যার পরের দিনেই বিশ্বব্যাপি বিশ্ব নারী দিবস পালিত হয়েছে। নারী দিবসকে সামনে রেখে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন অনেকেই। প্রশ্ন তুলেছেন দেশের নারী নেত্রীদের দিকে। আঙ্গুল তুলেছেন নারীবাদিদের রহস্যজনক নীরবতার দিকেও। এরই মধ্যে হেনস্তার শিকার নারীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে দোষীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার ঘোষণাও দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

কিন্তু এসব কিছুকে ছাপিয়ে ফেসবুকে নিন্দার ঝড় উঠেছে অস্ত্র মামলায় সাজাপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সেক্রেটারী নুরুল আজিম রনির একটি কুরুচীপূর্ণ ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে। নিজের ফেসবুক একাউন্ট থেকে ছাত্রলীগ নেতা রনি গতকালের যৌন হয়রানির শিকার নারীদের দেহব্যবসায়ীদের সাথে তুলনা করেছে। সামাজিক মাধ্যমে রনির এই আপত্তিকর স্ট্যাটাসের প্রতিবাদ করেছেন অনেকেই।

ছাত্রলীগ নেতা রনির কুরুচীপূর্ণ স্ট্যাটাস

রাজিব হাসান লিখেছেন, ‘রনি সাহেব, এই স্ট্যাটাসটা প্লিজ মুছবেন না। নৃতাত্ত্বিক, মনস্তাত্তিক, ঐতিহাসিক ও বাংলাদেশের রাজনীতির নানা গবেষণার জন্য আপনার এই পোস্ট যুগে যুগে রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহৃত হবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।’

ইফতিখার মাহমুদ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতির দিকে ইঙ্গিত করে লিখেছেন, ‘আপনাদের সোহাগ সাহেবের মত ‘দেশে প্রশ্ন ফাঁস হয় নাই কোনো’ টাইপের স্ট্যাটাস দিলেন আরকি। ব্যাপার না ভাই। হয়তো আপনার কাছের কারো সাথেও হবে একদিন, আপনার দলেরই কারো হাতে। প্রকৃতি প্রতিশোধ নিতে ছাড়ে না। তখনো কি এভাবেই ‘দেহ ব্যবসায়ী ‘ ট্যাগ দিবেন?’

আপেল মাহমুদ লিখেছেন, ‘আপনি খুব চমৎকার কথা বলেছেন। শরৎচন্দ্র পরবর্তী যুগে এটাই সবচেয়ে ভালো অবজারভেশন। কী নেই এই লেখায়? সব আছে। সমাজের নিপীড়িত মানুষের জয়গান, আইনজীবীদের তৎপরতা, প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ভালোবাসা, ইতিহাস নিয়ে ভাবনা এমনকি বিরোধীদলীয় নেত্রীর প্রতি যুক্তিযুক্ত উষ্মা প্রকাশ পেয়েছে এই ছোট্ট লেখাটায়।

‘যৌন নিপিড়িত কোন নারীর পক্ষে এমন উচ্ছাস প্রকাশ করে অনুভূতি প্রকাশ করা সম্ভব নয়’- বাক্যটি দিয়ে আপনি যৌনাক্রান্ত নারীর মননকে আবিষ্কার করেছেন। একজন পুরুষ হয়েও আপনিও যৌনাক্রান্ত হয়েছেন, নারীর ব্যাথা বুঝতে পেরেছেন সেজন্য আপনাকে স্যালুট।’

জাওয়ারফ আল জহির লিখেছেন, ‘রনি ভাই আপনি নিজেই তো ইভটিজার, অস্ত্র ব্যবসায়ী। সুতরাং ওদের পক্ষে নিবেন, সেটাই স্বাভাবিক নয় কি? ভোটের সময় অস্ত্র হাতে গ্রেপ্তারের দৃশ্য ভাসে রনি ভাই। বিশ্বাস করেন আপনাকে আমি ঐ ইভটিজারদের থেকেও নিকৃষ্ট ভাবি। একটা মেয়ের পোষ্টে মাত্র ৪ ঘন্টায় ১৪ হাজার লাইক+৬ হাজার শেয়ার। রাতে ঘুমানোর আগে শান্ত মস্তিষ্কে চিন্তা করবেন ছাত্রলীগদের এদেশের মানুষ কতটুকু ঘৃনা করে। ছাত্রলীগ যারা করে তারা কখনও ভালো হতে পারে না। এটাই প্রমাণিত ৭ই মার্চের মিছিল থেকে। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।।’

রকিব হাসান অনেকটা হতাশা ব্যক্ত করে লিখেছেন, ‘ভাই আপনাকে অনেক ভালোবাসি। মেঘলা আমার ডিপার্টমেন্টের ছোটোবোন। অনেক সাদাসিধা মেয়ে। বাকিদের চিনি না। একজন নির্যাতিতা মেয়েকে দেহ ব্যবসায়ী বলছেন!! অবাক হলাম! ছাত্রনেতা হিসেবে আপনার প্রতিবাদী স্বভাবটা দেখতে চেয়েছিলাম। জানি না কার কাছে আশা করবো।’

Comments

comments