নারায়ণগঞ্জে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ এএসআই আটক

বাসা ও থানার ভেতরে টেবিলে থাকা ব্যাগ থেকে মোট ৫০ হাজার ইয়াবা বড়িসহ নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার একজন সহকারী উপ পরিদর্শককে (এএসআই) আটক করা হয়েছে।

আটককৃত এএসআইয়ের নাম সোহরাওয়ার্দী রুবেল। গত পাঁচ মাস ধরে তিনি নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় কর্মরত আছেন।

বুধবার দিবাগত রাত ১টায় বন্দরের রূপালী আবাসিক এলাকার ফ্ল্যাট বাসায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ, বন্দর থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করে। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ইয়াবা উদ্ধারের এই অভিযান অব্যাহত ছিল।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের মার্চে অসদাচারণের অভিযোগে তাকে বন্দর থানা থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের “ম্যানেজ” করে আবারও নারায়ণগঞ্জে পদায়িত হন তিনি।

সোহরাওয়ার্দী রুবেল বন্দরের রূপালী আবাসিক এলাকাতে সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী কামরুল ইসলামের বাড়ির দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটে থাকেন।

বাড়িটির তত্ত্বাবধায়ক জিয়াউল জানান, এএসআই প্রায়ই বিভিন্ন লোকজনকে হাতকড়া পরা অবস্থায় ধরে এনে ফ্ল্যাটে রাখতেন। বুধবারও বিকালেও দুজনকে ধরে এনে বাসায় রেখে রাতে ছেড়ে দেয়। কেন ধরে আনা হতো বা বাসার ভিতরে তারা কী করতো সেটা জানি না।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ওসি মাহাবুবুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দিবাগত রাত ১টায় বন্দরে রূপালী আবাসিক এলাকাতে সোহরাওয়ার্দীর ভাড়া করা ফ্ল্যাট বাসায় অভিযান চালানো হয়। তখন বাসায় থাকা বাজারের ব্যাগ থেকে ৪৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান, “অভিযান চলাকালে থানা থেকেই সোহরাওয়ার্দী রুবেলকে আটক করা হয়। এসময় তার ব্যাগে পাঁচ হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। এ বিষয়ে অভিযান অব্যাহত আছে। তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষে ঊর্ধ্বতনদের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

Comments

comments