যোগীর রাজ্যে হোলির জন্য নামাজের সময় পরিবর্তন!

হোলি উৎসবকে সবারই সম্মান করা উচিত। কারণ তা বছরে হয় মাত্র একবার। সেখানে জুম্মার নামাজ পাঠ হয় বছরে ৫২ বার। হোলি ও নামাজের মধ্যে এভাবে তুলনা টেনে নয়া বিতর্কের জন্ম দিলেন ভারতের উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতা যোগী আদিত্যনাথ।
এবার হোলি উপলক্ষে অধিক মুসলিম জনগোষ্ঠীর উত্তর প্রদেশে জুম্মার নামাজের সময় পিছিয়ে দেয়া হয়েছে ২ ঘণ্টা। ১১ তারিখ ফুলপুর বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন। ভোটপ্রচারে গিয়ে সেই প্রসঙ্গ তুলে নামাজের সময় পিছিয়ে দেয়ার ব্যাপারে মৌলবীদের সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেন।
তিনি বলেন, তাকে বলা হয়েছিল, শুক্রবারই হোলির সঙ্গে জুম্মার নামাজ পড়ছে। তাই বেলা ১১টার মধ্যে হোলির উৎসব শেষ করার চেষ্টা চলবে। কিন্তু তিনি জানিয়ে দেন, বছরে একবার হোলি হয় আর জুম্মার নামাজ পাঠ হয় বছরে ৫২ বার। অতএব কাটছাঁটের দরকার নেই, হোলি তার নির্দিষ্ট সময়মতোই চলবে।

এর আগে নামাজ পাঠে যাওয়া জনতার ওপর হোলির রং ছোঁড়া উপলক্ষে দাঙ্গার একাধিক ঘটনা ঘটেছে। এবার সে কথা মাথায় রেখে হোলির আগে যোগী আদিত্যনাথ সরকারি কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন, মসজিদের ইমামদের সঙ্গে কথা বলে শুক্রবারের নামাজের সময় পাল্টানো যায় কিনা দেখতে, যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।
তার আবেদনে সাড়া দিয়ে নামাজের সময় ২ ঘণ্টা পিছিয়ে দেন ইমামরা। সেই পদক্ষেপের প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Comments

comments