সৎ মায়ের প্ররোচনায় ভাগ্নিকে ধর্ষণ করলো মামা, অন্ত:সত্ত্বা কিশোরী

টাঙ্গাইলে সৎ মায়ের প্ররোচনায় মামার বিরুদ্ধে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় নির্যাতিতার চাচা নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নির্যাতিতা কিশোরীর অভিযোগ, গত ২ বছর ধরে বাবা বিদেশে থাকায় সৎ মায়ের সঙ্গে একাই থাকতো সে। গত আট মাসে বেশ কয়েকবার এই সৎ মায়ের ভাই ধর্ষণ করে তাকে। ক’দিন আগে এ ঘটনা জানার পর, নির্যাতিতার চাচা কিশোরীকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসে।

নির্যাতিতা বলেন, ‘মাঝে মাঝে সে বাসায় আসত। আমাকে সব সময় জোরপূর্বক ধর্ষণ করত। এভাবেই আমি ৭-৮ মাসে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পরি।’

স্বজনরা বলেন, ‘ওর সৎ মা, তার মামার সঙ্গে একই বিছানায় দিত, কারণ তার ভাইকে নাকি বোবায় ধরে। ওর জীবনতাতো শেষ। এর বিচার হোক।’

এদিকে, ডাক্তারি পরীক্ষায় কিশোরীর অন্ত:সত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চিকিৎসক। চিকিৎসক বলেন, ‘মেয়েটি অন্ত:সত্ত্বা এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু কয় মাস সেটা পরীক্ষা করলে জানা যাবে।’

ধর্ষণের মামলায় অভিযুক্ত আসামিকে দ্রুত গ্রেফতার করে, আইনের আওতায় আনতে তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ বলেন, ‘ভিকটিমের জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। সে তার সৎ মামা দ্বারা ধর্ষণ হয়েছে। মেয়েটির মামাকে ধরার জন্য আমাদের পুলিশ তৎপর রয়েছে।’

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি নির্যাতিতার চাচা, নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

Comments

comments