কিশোরকণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার পেলেন চারজন

পুরস্কার পেলেন শাহ আব্দুল হান্নান, কবি কে জি মোস্তফা, এবনে গোলাম সামাদ, অধ্যাপক মুহম্মদ মতিউর রহমান।

জাতীয় শিশু-কিশোর পত্রিকা মাসিক নতুন কিশোরকণ্ঠ এর পক্ষ থেকে কিশোরকণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ ঘোষণা করা হয়েছে। কিশোর কণ্ঠের নির্বাহী কমিটির বৈঠকে পত্রিকার সম্পাদক কবি মোশাররফ হোসেন খান এ পুরস্কার ঘোষণা করেন। বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন শিশু সাহিত্যিক ও গবেষক মাহফুজুর রহমান আখন্দ, কিশোরকণ্ঠ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক সালাউদ্দীন আইয়ুবী, সহকারী সম্পাদক ইমাম হোসেন ও তোফাজ্জল হোসাইন প্রমূখ। এ বছর চারটি ক্যাটাগরিতে চারজনকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।

মনোনীতরা হলেন, শাহ আবদুল হান্নান(ইতিহাস-ঐতিহ্যে), কবি কে জি মোস্তফা (শিশুসাহিত্য), এবনে গোলাম সামাদ(সংস্কৃতি ও শিল্পকলা) এবং অধ্যাপক মুহম্মদ মতিউর রহমান (প্রবন্ধ ও গবেষণা)।

শাহ আব্দুল হান্নান ১৯৩৯ সালের ১লা জানুয়ারি ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক এবং ১৯৬১ সালে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। অবসরপ্রাপ্ত সচিব শাহ আবদুল হান্নান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রাণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ে গবেষণায় উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন। ‘দেশ, সমাজ ও রাজনীতি’, ‘দর্শন ও কর্মকৌশল’, ‘ল’ ইকোনোমিক এন্ড হিস্ট্রি’ তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ।

কবি কে জি মোস্তফা শিশু সাহিত্যসহ বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় বিশেষ অবদান রাখেন। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেন। কর্ম জীবনে তিনি ১৯৬২-৭৭ পর্যন্ত ঢাকাস্থ সিদ্ধেশ্বরীকলেজে অধ্যাপক, ১৯৭৭-৯৬ পর্যন্ত দুবাই চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিতে প্রকাশনা বিভাগে সম্পাদকএবংপরবর্তীতে ২০০৩-০৯ পর্যন্ত এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের বাংলা বিভাগের প্রফেসর ও চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। তার জন্ম ১ জুলাই ১৯৩৭ সালে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানায়। ১৯৬০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলাভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। ‘মজার ছড়া শিশুর পড়া’ ছাড়াও তাঁর উল্লেখযোগ্য শিশুতোষ গ্রন্থ রয়েছে।

এবনে গোলাম সামাদ বরেণ্য শিক্ষাবীদ ও কলামিস্ট। তার জন্ম ২৯ ডিসেম্বর ১৯২৯ সালে রাজশাহী শহরে। তিনি সংস্কৃতি ও শিল্পকলা বিষয়ে গবেষণাতে অনন্য অবদান রাখেন। ‘শিল্পকলার ইতিকথা’ এবং ‘মানুষ ও তার শিল্পকলা’ তাঁর উল্লেখযোগ্য দুটি গ্রন্থ।

অধ্যাপক মুহম্মদ মতিউর রহমানের জন্ম ১৮ ডিসেম্বর, ১৯৩৭ সালে সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর থানার চর নরিনা গ্রামে। দীর্ঘদিন প্রবাসে জীবন যাপন করেছেন। তিনি বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের মৌলিক বিষয়সমূহে গবেষণা গ্রন্থ প্রণয়ন করেন। সেই সাথে শিশু-কিশোরদের উপযোগী প্রবন্ধ সাহিত্য রচনায় তাঁর বিশেষ অবদান রয়েছে। ‘মহৎ যাদের জীবনকথা’, ‘ছোটদের গল্প’ এবং ‘কিশোর গল্প’ তাঁর উল্লেখযোগ্য শিশু সাহিত্য।

উল্লেখ্য পুরস্কারে মনোনীত প্রত্যেককে নগদ অর্থ, সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্রসহ বিভিন্ন উপহার সামগ্রী প্রদান করা হবে।

Comments

comments