অভাবের তাড়নায় নিজেকে ট্রেনের নিচে সপে দিলেন মা

দুই মেয়ের পড়ালেখা আর সংসারের অন্যান্য খরচ জোগাতে না পেরে ট্রেনের নিচে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন এক মা। আজ রোববার লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম খাদিজা বেওয়া। ৩৫ বছর বয়সী এই নারীর বাড়ি উপজেলার বড়াবাড়ি গ্রামে।

ঘটনার প্রত্যক্ষর্দশী স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের জানান, আজ সকাল ১০টার দিকে বুড়িমারী-লালমনিরহাট রেলরুটের আদিতমারী রেলষ্টেশন থেকে একটি ট্রেন ছেড়ে যায়। স্থানীয় লালব্রিজ এলাকায় পৌঁছালে হঠাৎ করে বিধবা খাদিজা দৌঁড়ে গিয়ে ট্রেনের সামেনে শুয়ে পড়েন। মুহূর্তেই দু’টুকরা হয়ে যায় তার দেহ।

খবর পেয়ে আশপাশের মানুষ এসে তাকে চিনতে পারেন। খাদিজা বড়াবাড়ি গ্রামের মৃত লাভলু মিয়ার স্ত্রী। স্বামী মারা যাওয়ার পর দুই মেয়ের লেখাপড়ার খরচসহ সংসারের সব খরচ বহন করতে হতো খাদিজাকে। কিন্তু স্বামীর কোনো সঞ্চয় না থাকায় প্রতিদিনের খরচ জোগানো তার পক্ষে সম্ভব হচ্ছিল না।

ধারণা করা হচ্ছে, এক পর্যায়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন এই মা।

ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের বলেন, খাদিজার স্বামী মারা যাওয়ার পর খুব কষ্ট করে চলছিল পরিবারটি। আজ সকালে মেয়ের স্কুলে যাওয়ার কথা বলে খাদিজা বোরকা পরে বাড়ি থেকে বের হন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্কুলে না গিয়ে তিনি লালব্রিজের রেললাইন এলাকায় চলে যান।

লালমনিরহাট রেলওয়ে থানার ওসি গোলাম মোস্তফা জানান, এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা হয়েছে। নিহতের লাশ তার পরিবারের নিকট দেয়া হয়েছে।

Comments

comments