রেজিস্ট্রেশনে অন্যের ছবি, এসএসসি পরীক্ষা দেয়া হলো না ছাত্রের

কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন আবদুল্লা

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় প্রধান শিক্ষকের অবহেলায় চলতি বছরের এসএসসি পরিক্ষায় আব্দুল্লাহ খাঁ নামের একজন ছাত্র অংশ নিতে পারেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার চিথলিয়া দ্বিমূখী উচ্চবিদ্যালয়ের কারিগরী শাখার ফুড প্রসেসিং অ্যান্ড প্রিজারভেশন ট্রেডের শিক্ষার্থী আবদুল্লা।

রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ছবির সঙ্গে চেহারার মিল না পাওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাসরিন বানু পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে তাকে বহিস্কার করার আদেশ দেন। ছাত্রের দাবি প্রধান শিক্ষকের অবহেলায় এমনটি ঘটেছে।

বহিস্কার করার আদেশ শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওই ছাত্র। বাইরে বেরিয়ে আসার পর সন্তানের চোখে পানি দেখে সেখানে উপস্থিত থাকা বৃদ্ধ বাবাও চোখের পানি আটকাতে পারেননি।

অন্য সহপাঠীরা এ সময় আবদুল্লাকে শান্ত করার চেষ্টা করতে থাকে। আবদুল্লার দাবি, আমার রেজিস্ট্রেশন কার্ডে যে ছবি তা অন্যের। এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠান প্রধান নেকবর হোসেন জানতেন। ওই রেজিস্ট্রেশন কার্ড নিয়ে আমি নবম শ্রেণির বোর্ড সমাপনি পরিক্ষাতেও অংশ নিয়েছি।

কিন্তু ছবি পরিবর্তন করার জন্য প্রতিষ্ঠান প্রধানকে একাধিকবার বললেও তিনি কোনো পদক্ষেপ নেননি। বরং কোনো সমস্যা হবে না বলে সাহস জোগানোর চেষ্টা করেছেন বলেও অভিযোগ অাবদুল্লার।

এ ব্যাপারে চিথলিয়া দ্বিমূখী উচ্চবিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক নেকবর হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও সাড়া মেলেনি।

বিএম কলেজের কারিগরী শাখার কেন্দ্র সচিব অধ্যক্ষ শরিফ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, কেন্দ্রের তিন নম্বর কক্ষের পরিদর্শক হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করাতে গেলে ওই পরিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ছবির সঙ্গে কোনো মিল না পাওয়ায় বিষয়টি আমাকে জানায়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কেন্দ্র পরিদর্শন করতে আসার পর বিষয়টি স্যারকে অবগত করি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাসরিন বানু ওই ছাত্রকে বহিস্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ছবির সাথে ওই ছাত্রের চেহারার কোনো মিল নেই। এ সংক্রান্ত কাগজ পত্র সহ সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে অবহিত করতে কেন্দ্র সচিবকে বলা হয়েছে। চলতি পরিক্ষায় সে অংশ নিতে পারবে না বলেও জানান তিনি।

Comments

comments