পাবনায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চরমপন্থি নেতা নিহত

পাবনার আমিনপুর থানার ঢালারচরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চরমপন্থি নেতা জুলহাস বাহিনীর প্রধান জুলহাস মণ্ডল নিহত হয়েছেন। এ সময় বেশকিছু আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার গভীর রাতের এ ঘটনায় চার পুলিশ আহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস। তিনি বলেন, ‘বেশ কয়েকটি মামলার পলাতক আসামি ও চরমপন্থি নেতা জুলহাস মণ্ডলকে ঢাকার নিউ মার্কেট থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার তাকে পাবনার আমিনপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তার সহযোগী ও অস্ত্র-গোলাবারুদ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেয়। এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাত একটার দিকে জুলহাসকে নিয়ে অভিযানে যায় পুলিশ। পথে ঢালারচরের বালাজ মেম্বারের মোড় নামক স্থানে জুলহাসকে ছিনিয়ে নিতে তার সহযোগীরা পুলিশকে ওপর গুলি করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এরমধ্যে পুলিশ হেফাজত থেকে পালিয়ে যায় জুলহাস। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে চলা বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ জুলহাসকে উদ্ধার করে বেড়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

পুলিশের দাবি, বন্দুকযুদ্ধে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। ঘটনাস্থল থেকে দুটি দেশি পাইপগান, একটি দেশি পিস্তল, দুটি রামদাসহ বেশকিছু আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, নিহত জুলহাস মণ্ডল চরমপন্থি দলের আঞ্চলিক নেতা ও জুলহাস বাহিনীর প্রধান ছিলেন। তার বিরুদ্ধে আমিনপুর, রাজবাড়ি ও কুষ্টিয়া থানায় হত্যাসহ নয়টি মামলা রয়েছে।

Comments

comments