চবিতে সাড়ে ৩ লাখ টাকা ও আইফোনে ভর্তি জালিয়াতি চুক্তি!

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি চেষ্টার ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁর নাম জাহিদুল ইসলাম। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গতকাল সোমবার রাতে তাকে হাটহাজারী থানায় সোপর্দ করে। জাহিদুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য একটি জালিয়াত চক্রের সঙ্গে সাড়ে ৩ লাখ টাকা এবং একটি আইফোন দেওয়ার চুক্তি করেন বলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র গণমাধ্যমকে বলেন, জাহিদুল ইসলাম নামের এক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগে ভর্তি হতে আসে। এ সময় তাঁর কাছে থাকা রসিদে উল্লেখ করা আইডি নম্বরের সঙ্গে অন্য এক শিক্ষার্থীর আইডি নম্বর মিলে যায়। রসিদ জাল করার বিষয়টি বিভাগের সভাপতি সজীব কুমার ঘোষ চিহ্নিত করেন। তিনি বিষয়টি প্রক্টরিয়াল বডিকে জানান।

লিটন মিত্র আরও বলেন, ওই শিক্ষার্থীকে প্রক্টর কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদে করলে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে একটি জালিয়াতি চক্রের দুই সদস্যের সঙ্গে সাড়ে ৩ লাখ টাকা ও একটি আইফোন দেওয়ার চুক্তি করেছেন বলে জানান। ওই দুজন হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের ছাত্র সাদ্দাম হোসেন ও শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের জুলকার নাইন। তাঁরা দুজনই ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। জিজ্ঞাসাবাদের পর আটক ছাত্রকে পুলিশের কাছে দেওয়া হয়। জালিয়াত চক্রে থাকা দুই শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে হাটহাজারী থানা-পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দীন জাহাংগীর গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি চেষ্টার অভিযোগ এনে আমাদের কাছে তুলে দেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Comments

comments