টাকা নিয়ে বিনামূল্যের বই বিতরণ করলেন প্রধান শিক্ষক

ঝিনাইদহ সদর উপজলার উদয়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারি বই বিতরণে শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. নারগিস বানুর বিরুদ্ধে। তবে প্রধান শিক্ষক বলছেন, স্কুলের থালা ও কাপ-পিরিচ কেনার জন্য শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা জানান, প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের প্রতি ছাত্র-ছাত্রীর কাছ থেকে বই দেওয়া বাবদ ৩০ টাকা করে নিয়েছেন। যারা এই টাকা দেয়নি তাদের বই দেওয়া হয়নি।

টাকা না দেওয়ায় দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র রিফাতকে বই দেওয়া হয়নি। রিফাত জানায়, তার মা লোকের বাড়িতে ঝি এর কাজ করে। সে টাকা দিতে না পারায় তাকে বই দেওয়া হয়নি। টাকা দেওয়ার পর কয়েকদিন আগে তাকে বই দেওয়া হয়েছে।

উদয়পুর গ্রামের একজন অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষক অভিভাবকদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। তাই তার ছেলেকে এই স্কুল থেকে নিয়ে ঝিনাইদহ শহরের অন্য একটি বিদ্যালয়ে ভর্তি করেছি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. নারগিস বানু জানান, আমি বই বাবদ কোন টাকা নেইনি। স্কুলের থালা ও কাপ-পিরিচ কেনার জন্য শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে ৩০ টাকা নেওয়া হয়েছে।

ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোস্তাক আহমেদ বলেন, বই বাবদ টাকা নেওয়ার কোন নিয়ম নেই । যদি কেউ নিয়ে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, সরকার প্রতি বছর স্কুলের ক্ষুদ্র উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ প্রদান করে।

Comments

comments