মৈত্রী ট্রেনে বিএসএফের হাতে বাংলাদেশি নারীর শ্লীলতাহানি

ঢাকা ও কলকাতার মধ্যে চলাচলকারী মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে বাংলাদেশি এক নারী শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার সকাল ভারতীয় সময় সাড়ে ৭টার দিকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রাজধানী কলকাতার দমদম ও ব্যারাকপুর এলাকার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

আর ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) এক সদস্যের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তাঁর নাম জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী বাংলাদেশি নারীর স্বামী।

ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সকাল ৭টা বেজে ১০ মিনিটে কলকাতার চিতপুর স্টেশন থেকে বাংলাদেশের ঢাকার উদ্দেশ্যে ছাড়ে মৈত্রী এক্সপ্রেস। ট্রেনটি ছাড়ার পর ট্রেনযাত্রী ওই বাংলাদেশি নারী দমদম ও ব্যারাকপুরের মধ্যে রেলের শৌচালয়ে যান। এ সময় শৌচালয়ের মধ্যে ঢুকে ট্রেনের নিরাপত্তা দায়িত্বে থাকা ওই বিএসএফ জওয়ান ওই নারীর শ্লীলতাহানি করে। এরপর ওই নারী নিজের আসনে ফিরে এসে বিষয়টি তাঁর স্বামীকে জানান। স্বামী ঘটনাটি মৈত্রী এক্সপ্রেসের টিকিট পরীক্ষককে জানান। কিন্তু ততক্ষণে ট্রেনটি গেদে সীমান্তে পৌঁছে যায়। সেখানেই ওই টিকিট পরীক্ষককের সহায়তায় গেদে স্টেশনে বাংলাদেশি নারী ও তাঁর স্বামী অভিযোগ লিপিবদ্ধ করেন।

ভারতের পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঘটনাটি যেহেতু দমদম ও ব্যারাকপুরের মধ্যে ঘটেছে সেহেতু ঘটনার তদন্ত করবে দমদম রেল পুলিশ (জিআরপি)। দমদম জিআরপি এরই মধ্যে বিষয়টি তদন্ত করছে বলে জানা গেছে।

এর আগে মৈত্রী এক্সপ্রেসের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল রেলের জিআরপি এবং আরপিএফ বাহিনী। কিন্তু সম্প্রতি সেই দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় বিএসএফের হাতে। এখন ভারতের বিএসএফ জওয়ানরাই কলকাতা থেকে গেদে পর্যন্ত নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে। ভারতের কেন্দ্রীয় রেল মন্ত্রণালয়ের পক্ষেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে ভারতের পূর্ব রেলের জনসংযোগ কর্মকর্তা রবি মহাপাত্র জানান, এক বাংলাদেশি নারী যাত্রীকে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ দায়ের হয়েছে রেল কর্তৃপক্ষের কাছে। মৈত্রী এক্সপ্রেসের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এক বিএসএফ জওয়ান ওই শ্লীলতাহানি করেছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী শাস্তির ব্যবস্থা হবে।

Comments

comments