মাংস নিয়ে দ্বন্দ, ঝিনাইদহে আ.লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৫

দুইজনের পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়েছে

ছবি : প্রতীকি

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় মাংস বিক্রি নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছেন। আহত দুজনের পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়েছে। তাদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার খুলুমবাড়িয়া ও বন্দেখালী গ্রামের মাঝামাঝি স্থানে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

শৈলকপুার লাঙ্গলবাধ পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক শমিরন বাবু জানান, দীর্ঘ দিন ধরে বন্দেখালী গ্রামে আওয়ামী লীগের আবুল মেম্বর ও ধলহরাচন্দ্র ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। শুক্রবার রাতে লাঙ্গলবাধ বাজার থেকে নজরুল ইসলামের ছেলে আসাদুল ইসলাম নান্নুসহ চারজন রিকশাভ্যানে করে বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে প্রতিপক্ষ ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবুলের ১৫-১৬ জন সর্মথক তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে রিকশা ভ্যানচালকসহ ৫জনই আহত হন। হামলাকারীরা প্রতিপক্ষদের কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। নান্নুসহ দুইজনের পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়েছে। পথচারীরা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে লাঙ্গলবাধ বাজারের একটি ক্লিনিকে ভর্তি করেন। পরে আহত চারজনকেই মাগুরা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শৈলকুপা উপজেলার ৮নং ধলহরা চন্দ্র ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য চান্দ আলী জানান, গ্রামে তাদের মধ্যে মাংস বিক্রি নিয়ে নতুন করে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে শুক্রবার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Comments

comments