ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে: সাকিব

কাগজ কলমের হিসেব বলছে, এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ ফেবারিট। বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা, ম্যানেজমেন্টও সেরকমই বলছেন। নিজেদের ফেবারিট মানতে আপত্তি নেই ওয়ানডে দলের সহঅধিনায়ক সাকিব আল হাসানেরও।

কিন্তু তিনি বলছেন, খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ হতে পারে এই টুর্নামেন্ট। কারণ, শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে দুটি দলই বাংলাদেশ সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখে। এই কারণে সাকিব বলছিলেন, ‘হ্যাঁ, অবশ্যই বাংলাদেশের সম্ভাবনা আছে। আমরা তো মনে করি আমাদের খুব ভালো সম্ভাবনাই আছে। কিন্তু দুইটা দলই ভালো। কেউই খারাপ না। আর যেহেতু দুইটা দলই আমাদের খেলোয়াড় এবং কন্ডিশন সম্পর্কে ভালো জানে তাই আমার মনে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাই হবে। তবে যেহেতু আমরা অনেক ভালো একটা দলে পরিণত এখন তাই আমাদের ভালো করার সম্ভাবনাই অনেক বেশি।’

এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের আরেকটা দুশ্চিন্তার বিষয় হলো, এখানে নেই দলের সঙ্গে কোনো প্রধান কোচ।

যদিও বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এই সিরিজে মাশরাফি-সাকিবদেরই কোচের দায়িত্ব পালন করতে হবে। সাকিব বলছিলেন, এই কোচের না থাকা নিয়ে খুব চিন্তা করার কারণ নেই। তারা অধিনায়ক ও সহঅধিনায়ক হিসেবে বাড়তি দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত আছেন, ‘আসলে এগুলো নিয়ে খুব বেশি চিন্তার দরকার আছে বলে মনে হয় না। আমাদের সবারই আলাদা আলাদা রোল আছে। আর সবাই সবার রোল সম্পর্কে খুবই ভালোভাবে অবগত। ওই রোলগুলোই সবাই প্লে করার চেষ্টা করবে। যদি ওইটা ঠিকভাবে করতে পারি তাহলে অবশ্যই আমরা সাফল্য পাবো। যেহেতু আমরা অধিনায়ক সহঅধিনায়ক তাই স্বাভাবিকভাবেই আমাদের উপর একটি বেশি দায়িত্ব থাকেই। এবং ওইগুলোও আমরা করতে প্রস্তুত।’

শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে দুটো দুই ধরনের দল। কার বিপক্ষে বাংলাদেশের কৌশল কী হবে, একাদশ কেমন হবে; এগুলোও আলোচ্য বিষয়। কিন্তু সাকিব বলছেন, এত আগে এগুলো নিয়ে কথা বলা সম্ভব না। কারণ, ওই সময় উইকেট ও আবহাওয়া কেমন হবে, সে হিসেবেই সব ঠিক হবে, ‘আসলে এখন বলা মুশকিল। পিচ কেমন হবে, আবহাওয়া কেমন থাকবে এসব আসলে চিন্তা বিষয় হওয়া উচিত না। যেটা হবে দুই দলের জন্য একই থাকবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেটা ভালো খেলতে হবে। ভালো খেললে প্রতিপক্ষ যেই থাক, কিংবা যে সুবিধাই পাক আসলে আমাদের সঙ্গে পারাটা কষ্ট হবে। আমাদের ফোকাস থাকবে যেন আমরা দল হিসেবে ভালো করতে পারি।’

এখন বাংলাদেশ দল অপেক্ষা করছে চূড়ান্ত দল ঘোষণার জন্য। সেই দলের ব্যাপারে মাশরাফি ও সাকিবের যথেষ্ট বক্তব্য থাকবে বলেই অনুমান করা যায়। তবে সাকিব বলছেন, সেটাও নিয়মিত অনুশীলনেরই অংশ, ‘এইগুলো সবসময়ই আলোচনার মধ্যেই থাকে। দল নির্বাচনের আগ পর্যন্ত এই আলোচনা প্রতিদিনই হতে থাকে। একটা দুইটা জায়গা নিয়ে সবসময়ই আলোচনা হতে থাকে। দল নির্বাচনের আগ পর্যন্ত এটা চলতেই থাকবে।’

Comments

comments