হরিণের মাংসসহ আ.লীগের দুই নেতা গ্রেপ্তার

বাগেরহাটের শরণখোলায় আওয়ামী লীগের দুই নেতার কাছ থেকে জব্দ করা হরিণের মাংস। ছবি: প্রথম আলো

বাগেরহাটের শরণখোলায় ১০ কেজি হরিণের মাংসসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার সাউথখালি ইউনিয়নের উত্তর বকুলতলা গ্রাম থেকে পুলিশ তাঁদের গ্রেপ্তার করে।

এ ঘটনায় আজ শনিবার সকালে শরণখোলা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশার বাদী হয়ে ওই দুজনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামি পলাতক রয়েছেন।

আওয়ামী লীগের গ্রেপ্তার হওয়া দুই নেতা হলেন উপজেলার সাউথখালি ইউনিয়নের দক্ষিণ তাফালবাড়ি গ্রামের দলিল উদ্দিন তালুকদারের ছেলে জাফর তালুকদার (৫০) ও রায়েন্দা গ্রামের তৌহিদুল আলমের ছেলে শামছুল ইসলাম (৪৫)। জাফর তালুকদার সাউথখালি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং শামছুল ইসলাম ওই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি। দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করে শরণখোলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির বলেন, হরিণ শিকার করে তাঁরা জঘন্য অপরাধ করেছেন। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবিরুল ইসলাম বলেন, সুন্দরবন থেকে শিকার করে নিয়ে আসা হরিণের মাংস নিয়ে তিন ব্যক্তি মোটরসাইকেলে করে শরণখোলা উপজেলা সদরে আসছিলেন। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ বকুলতলা এলাকায় অবস্থান নেয়। এ সময় ওই তিনজন ওই এলাকায় পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মোটরসাইকেল ঘুরিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। পুলিশ ধাওয়া করে দুজনকে ১০ কেজি হরিণের মাংসসহ ধরে ফেলে। অন্যজন মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যান। দুজনই স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা। তাঁরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানান, সুন্দরবন থেকে তাঁরা একটি হরিণ শিকার করেন। পরে তা জবাই করে মাংস বিক্রির জন্য উপজেলা সদরে নিয়ে আসছিলেন। তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। দুপুরে তাঁদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Comments

comments