পাশের হার কম কেন, মন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা নেই

২০১৭ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় পাশের হার কম হওয়ার কোনও ব্যাখ্যা নেই প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারের কাছে। শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে পরীক্ষার ফল প্রকাশ নিয়ে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত প্রশ্ন এড়িয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘ফলাফল ও জিপিএ-৫ গতবারের তুলনায় কম কেন, সে বিষয়ে এখনই ব্যাখ্যা দেওয়া সম্ভব নয়। ফল খারাপ হওয়ার কারণ জানতে আমরা কাজ করব। জাতি এর উত্তর জানতে পারবে।’

এর আগে, প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার প্রকাশিত ফলে জানা যায়, পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় এবার ৯৫ দশমিক ১৮ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে। আর ইবতেদায়ীতে পাস করেছে ৯২ দশমিক ৯৪ শতাংশ পরীক্ষার্থী। গত বছর প্রাথমিক সমাপনীতে ৯৮ দশমিক ৫১ শতাংশ ও ইবতেদায়ীতে ৯৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল। গতবারের তুলনায় এ বছরে দুই পরীক্ষার ফলই খারাপ হয়েছে। এবার প্রাথমিকে জিপিএ ৫ পেয়েছে দুই লাখ ৬২ হাজার ৬০৯ জন, ইবতেদায়ীতে পাঁচ হাজার ২৩ জন শিক্ষার্থী।

আগের বছরের তুলনায় পাসের হার কম হলেও সার্বিক ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আগের বছরের তুলনায় এবার ফল খারাপ হলেও সার্বিক ফলে আমরা সন্তুষ্ট। তবে আমরা চাই সব শিশু পাস করুক। আমরা আমাদের শিক্ষকদের সেভাবেই নির্দেশনা দিয়েছি। আশা করছি শিশুদের প্রতি তারা আরও যত্নবান হবেন।’

মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের সূচনা করেছেন। ১ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে বই উৎসবের বড় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষকদের আন্দোলন বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা শিক্ষকদের দাবির বিষয়গুলো সুরাহা করার চেষ্টা করছি। আন্দোলন নয়, আলোচনার মাধ্যমে এসব বিষয় সমাধান করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, এ বছর ৩১ লাখ শিক্ষার্থী প্রাথমিক ও ইবতেদায়ীতে অংশ নেয়। যদিও প্রত্যেকটি পরীক্ষার পরই প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ওঠে।

Comments

comments