ঢাকায় গ্রেপ্তারের পর চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

বন্দুরযুদ্ধের পর চুয়াডাঙ্গা থেকে উদ্ধার হওয়া ধারালো অস্ত্র। ছবি : এনটিভি

চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ভালাইপুর কবরস্থানের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির নাম কেতু। তিনি সদর উপজেলার আকন্দবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। পুলিশের দাবি নিহত ব্যক্তি ডাকাতদলের সদস্য।

চুয়াডাঙ্গার সহকারী পুলিশ সুপার আহসান হাবিব জানান, গত রাত সাড়ে ৮টার দিকে কেতুকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে চুয়াডাঙ্গা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশ রাতে অস্ত্র উদ্ধারে বের হয়। এ সময় ভালাইপুর কবরস্থানের কাছে পৌঁছালে কেতুর অন্য সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ডাকাত সদস্য কেতুকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় ডাকাতদলের সদস্যদের হামলায় পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছেন বলেও জানান আহসান হাবিব। আহতদেরও সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সহকারী পুলিশ সুপার আরো জানান, ঘটনাস্থলে তল্লাশি করে পুলিশ একটি এলজি, দুই রাউন্ড গুলি, ছয়টি ককটেল ও ছয়টি ধারালো রামদা উদ্ধার করেছে

Comments

comments