গতি কমিয়ে দেওয়া হয় পুরোনো আইফোনে

ছবি- রয়টার্স

আইফোনে ধীর গতির কারণ জানিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল।

সাম্প্রতিক সময়ে কিছু কিছু আইফোনে ধীর গতি দেখা গেছে। বিশেষ করে পুরাতন আইফোনগুলোতে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়।

আইফোনে এই ধীর গতির কারণ ব্যাখা করতে গিয়ে বুধবার অ্যাপল জানায়, তাদের অ্যালগরিদম এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে ব্যাটারিতে চার্জ কম থাকলেও ডিভাইসটি পুরোপুরি বন্ধ না হয়ে সন্তোষজনক কার্যক্ষমতা দিতে পারে– খবর মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি’র।

এর আগে রেডিট-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কয়েক বছর ব্যবহারের পর প্রসসরের ক্লক স্পিড কমিয়ে দেয় আইফোন। এটি অ্যাপল ইচ্ছাকৃতভাবেই করেছে বলে জানানো হয়।

এর জবাবে সিনবিসি-কে অ্যাপলের পক্ষ থেকে বলা হয়, “গ্রাহকদেরকে সবচেয়ে ভালো কার্যক্ষমতা দেওয়াটাই আমাদের লক্ষ্য, এর মধ্যে সার্বিক কার্যক্ষমতা ও ডিভাইস দীর্ঘস্থায়ী করার বিষয় রয়েছে। শীতল আবহাওয়ায় লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি চাহিদার থেকে কম শক্তি সরবরাহ করে, অনেকদিন ব্যবহারের পর ব্যাটারির চার্জ কম থাকে, যার কারণে ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রাংশগুলো রক্ষা করতে ডিভাইসটি অনাকাংক্ষিতভাবে বন্ধ হয়ে যায়। ।”

“আগের বছর আইফোন ৬, আইফোন ৬এস এবং আইফোন এসই-এর জন্য নতুন ফিচার এনেছে অ্যাপল। প্রতিকূল অবস্থাগুলোতে অনাকাংক্ষিতভাবে ডিভাইস যাতে বন্ধ না হয় সে কারণেই ফিচারটি আনা হয়েছে।”

এই ফিচারের কারণেই ডিভাইসগুলোতে কিছুটা ধীর গতি দেখা দিতে পারে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

অ্যাপলের পক্ষ থেকে আরও বলা হয় আইফোন ৭-এ একই ফিচার যোগ করা হয়েছে। পরবর্তীতে অন্যান্য ডিভাইসেও এই ফিচার যোগ করা হবে বলে জানানো হয়।

আগের বছর অনেক গ্রাহকই এমন অভিযোগ জানিয়েছেন যে, ব্যাটারিতে কিছু পরিমাণ চার্জ বাকি থাকলেও আইফোন হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে পরবর্তীতে আইফোন ৬ আইফোন ৬এস-এর জন্য আপডেট আনে অ্যাপল।

Comments

comments