ওজন কমাতে সবজিতে মনোযোগ দরকার

শরীরের বাড়তি মেদ ঝেড়ে ফেলতে চেষ্টার শেষ নেই আমাদের। হাঁটাহাঁটি তো চলছেই, সঙ্গে চলছে আরো কত নিয়মকানুন।

তবে শুধু নিয়মকানুন মেনে চললে হবে না, পরিবর্তন আনতে হবে খাদ্যাভ্যাসেও। ব্যায়াম এবং নিয়ম মেনে খাবার গ্রহণ করলেই সম্ভব কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো। তবে ওজন কমানোর নিয়মকানুন পুরুষ ও নারীর জন্য কিন্তু এক নয়, রয়েছে ভিন্ন সব নিয়মকানুন। এখানে পুরুষের জন্য আরো কিছু নিয়ম নিয়ে আলোচনা করা হলো।

খাবারের ব্যাপারে আরো বেশি সতর্ক হওয়া

সাধারণত আমাদের দেশে খাওয়াদাওয়ার ব্যাপারে পুরুষরা তেমন সতর্কতা অবলম্বন করে না। কী খাচ্ছে বা খাওয়ার প্রয়োজন আছে কি না, তা নিয়ে তেমন একটা ভাবে না, যতটা ভাবে নারীরা। সামনে যে খাবার পায়, তা-ই খেয়ে নেয় পুরুষরা। সামনে থাকা খাবার স্বাস্থ্যসম্মত কি না, তা নিয়ে ভাবার সময়ই পায় না তারা, এর আগেই তা সাবাড়। ব্যতিক্রম যে নেই, তা নয়।

অনেকেই আছে, যারা খাবার আগে চিন্তাভাবনা করে। অথচ ওজন কমাতে হলে খাবারের গুণাগুণ বিচার করতে হবে। খাবারের ক্যালরি সম্পর্কে কিছুটা ধারণা থাকতে হবে। বিশেষ করে সহকর্মীদের সঙ্গে ফাস্ট ফুড খাওয়ার আগে চিন্তাভাবনা করা উচিত। দেখা উচিত খাবারে কতটা ক্যালরি আছে, চিনিযুক্ত খাবার বেশি খাওয়া হচ্ছে কি না। এসব অবশ্যই বিবেচনায় রাখা উচিত। অন্যথায় শুধু ব্যায়াম করে ওজন নিয়ন্ত্রণে আনা একপ্রকার অসম্ভবই।

ফল ও সবজি খাওয়া

অনেকেই খাবারের টেবিলে ফল ও সবজি এড়িয়ে চলে। কিন্তু সত্যিই যদি ওজন কমাতে হয়, তাহলে খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনতে হবে। লক্ষ্যে পৌঁছাতে অবশ্যই আপনাকে অন্য সব খাবার কমিয়ে সবজি ও ফল বেশি খেতে হবে। এতে আপনার ক্ষুধা যেমন মিটবে, তেমনি শরীরে অতিরিক্ত ক্যালরিও জমা হবে না।

ছুটির দিনে বেশি কাজ

আমাদের নিয়মটাই উল্টো। আজ ছুটি তো কোনো কাজ নেই। একটাই কাজ—ঘুম আর ঘুম। আর ব্যতিক্রম যদি কিছু হয়, তাহলে টেলিভিশনের রিমোটটা টেপাটেপি করা। মূলত ছুটির দিনটা আলস্যে পার করে দেওয়াই আমাদের অভ্যাস। অথচ ছুটির দিন আমাদের আরো বেশি কাজ করা উচিত। তা যদি সম্ভব না হয়, তাহলে হালকা জগিং করা উচিত। কোনোমতেই ছুটির দিনটা কাজহীন থাকা উচিত নয়। কোনোমতেই খাদ্য পরিপাকপ্রক্রিয়ার গতি কমতে দেওয়া উচিত নয়।

Comments

comments