বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশির মৃত্যুর অভিযোগ

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম সীমান্তে রশিদুল ইসলাম (৩০) নামের এক বাংলাদেশিকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) সদস্যরা নির্যাতন করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পরে তাঁকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। আজ বুধবার ভোরে উপজেলার শ্রীরামপুর ইউনিয়নের মাস্টারের বাড়ি সীমান্তের ওপারে ভারতের চ্যাংড়াবান্দা গ্রামে রশিদুলকে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

নিহত রশিদুল ইসলাম উপজেলার জোংড়া ইউনিয়নের মোমিনপুর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। তাঁর দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা সীমান্ত দিয়ে গরু পারাপারকারীর (রাখাল) দলের সঙ্গে রশিদুল চ্যাংড়াবান্দা যান। গরু নিয়ে ফেরার সময় বিএসএফ সদস্যরা তাঁদের ধাওয়া করে। সবাই পালাতে পারলেও রাশিদুল বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে। এরপর তারা রশিদুলকে মারধর করে সীমান্ত লাগোয়া বাংলাদেশ অংশে ফেলে যায়। পরে তাঁকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে ওই দলের অন্য সদস্যরা। উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনি শংকর কর বলেন, রশিদুলের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রংপুর-৬১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের বুড়িমারী বিজিবি সদর কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার ওবাইদুল হক জানান, ভারতের ৬১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চ্যাংড়াবান্দা বিএসএফ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার রাজেশ কুমারের সঙ্গে কথা হয়েছে। বিএসএফ বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

Comments

comments