সিরিয়ান প্রতিবন্ধী কিশোরীর স্বপ্ন সত্যি করলেন মেসি

এক সিরিয়ান প্রতিবন্ধী কিশোরীর স্বপ্ন সত্যি করে তুললেন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসি ও তার ক্লাব বার্সেলোনা।

নুজনিন মুস্তাফা (১৮) নামে ওই কিশোরীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল ফুটবলার লিওনেল মেসি এবং তার টিমমেটদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার।

অবশেষে টিম বার্সেলোনার এক আমন্ত্রণে তার সেই স্বপ্ন সত্যি হল।

সিরিয়ার যুদ্ধবিধ্বস্ত শহর আলেপ্পো থেকে দুই বছর আগে নুজনিন ও তার বোন নাসরিন পশ্চিম জার্মানির কোলোগ্নিতে পালিয়ে আসেন।

সেখানকার একটি আশ্রয় কেন্দ্রে বোনকে নিয়ে বসবাস করছেন সেরিব্রাল পালসিদে আক্রান্ত নুজনিন। অসুস্থতার জন্য হুইলচেয়ারে কাটছে তার জীবন।

নুজনিন বার্সেলোনার একজন অন্ধভক্ত। স্প্যানিশ ক্লাবটি এ কথা জানার পর দুই বোনকে স্পেনে এসে সেল্টাভিগো খেলা উপভোগ করার সুযোগ করে চমকে দেয়ার আয়োজন করে।

মাসখানেক আগে টিম বার্সেলোনার আমন্ত্রণ জানান নুজনিন ও নাসরিনকে। এর পর ৫ হাজার ৬০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে দুই বোন পৌঁছেন খেলার মাঠে।

অবশেষে মাঠে বসে সেল্টাভিগোর বিপক্ষে বার্সেলোনা তারকাদের একটি ম্যাচ দেখেন নুজনিন ও নাসরিন। পরে মেসি ও সতীর্থদের কাছে পেয়ে বেশ আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন নুজনিন।

জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরের তত্বাবধানে থাকা নুজনিন আরবি ভাষা ছাড়াও ফ্রেঞ্চ, ইংলিশ ও জার্মান ভাষায় কথা বলতে পারেন।

মেসিকে দেখার অনুভূতি সম্পর্কে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে নুজনিন বলেন, মেসির চেহারা বাচ্চাদের মতো, যদিও তার বয়স ৩০ বছর। আমি মেসিকে বলব- তুমি বড় হও। কারণ আমি তাকে ২০০৭ সাল থেকে জানি।

নুজনিন বিশ্বাস করেন, একদিন সত্যিই পৃথিবী শান্তির জায়গা হবে।

Comments

comments